দারুন কায়দায় কেবল একটি চাকতির সাহায্যে পুকুর থেকে প্রচুর মাছ ধরছেন যুবক, ভাইরাল ভিডিও!

বর্তমানে ইন্টারনেট জগত আমাদের জীবনে অনেকটাই প্রভাব বিস্তার করতে শুরু করে দিয়েছে। এই ইন্টারনেট জগৎ মানেই প্রতিদিন রকমারি নানান ধরনের জিনিসের সম্ভার।

বর্তমানকালে মানুষের জীবনের সাথে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম। প্রতিদিনকার কর্ম সম্পর্কে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার না করলে যেন আমাদের চলেই না।

কাজের ফাঁকে হোক বা অবসর সময়ে সর্বদা আমরা সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করতে পছন্দ করে থাকি। যদিও অনেকেই অতিরিক্ত পরিমাণে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করার বিরুদ্ধে রয়েছেন।

কারণ বিশেষজ্ঞদের দাবি অনুযায়ী অতিরিক্ত পরিমাণে নেট মাধ্যম ব্যবহারের ফলে মানসিক অবসাদে ভুগতে শুরু করেছেন অনেকে। তবে একথা মিথ্যে নয় যে এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা নানান ধরনের শিক্ষামূলক ভিডিওর সন্ধান পাই।

আবার এমন অনেক ভিডিও দেখতে পাই আমরা যেখানে অনেক মানুষ নিজেদের প্রতিভার বিকাশ ঘটিয়ে থাকেন। আজকাল ফেসবুক বা ইউটিউব খুললেই আমরা নানান ধরনের নাচ—গান এবং অন্যান্য ভিডিও দেখতে পারি।

দিন প্রতিদিন এই ধরনের ভিডিওর সংখ্যা যেন বেড়েই চলেছে। গতবছর লকডাউন এর সময় ঘরবন্দি থেকে আমরা আরো বেশি ভাবে এই সোশ্যাল মিডিয়াতে নিজেদেরকে বন্দি করে নিয়েছি।

সম্প্রতি নেটদুনিয়ায় একটি ভাইরাল ভিডিও লক্ষ্য করা গিয়েছে।এই ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে অল্প বয়সী একজন কিশোর অসাধারণ কায়দায় দুর্দান্ত পদ্ধতিতে কৌটোর সাহায্যে একের পর এক মাছ ধরে চলেছেন। খুব বেশি বয়স হবে না তার বড়জোর ১৫—১৬।

এই বয়সেই যেভাবে কিশোরটি অসাধারণ কায়দায় মাছ ধরার পদ্ধতি রপ্ত করেছে তা নিঃসন্দেহে প্রশংসার যোগ্য।উল্লেখ্য এর আগেও আমরা সোশ্যাল মিডিয়ায় মাছ ধরার বিভিন্ন ভিডিও ভাইরাল হতে দেখেছিলাম।

যেমন গতকাল ভাইরাল একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছিল, ঝুড়ির সাহায্যে একটি গ্রামের অগভীর জলাশয় থেকে দুই যুবক বড় সাইজের মাছ ধরে চলেছেন। ভারতের বেশিরভাগ মানুষ প্রধানত কৃষিকাজ এবং মৎস্য চাষের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করে থাকে।

গ্রামের অঞ্চল গুলির ক্ষেত্রে সাধারণত এই ধরনের ব্যবস্থা বহুল পরিমাণে প্রচলিত।তাই লক্ষ্য করলে দেখা যায় শহরের তুলনায় গ্রামবাসীরা এইসব কাজে অত্যন্ত দক্ষ হয়ে থাকেন। শুধুমাত্র পুরুষরাই নয়, মহিলা থেকে শুরু করে শিশুরাও খুব ছোটবেলা থেকেই কৃষিকাজ সহ পশুপালন, মৎস্য চাষ প্রভৃতিতে নিজেদের আয়ত্ব লাভ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.