ভারত সীমান্তে ড্রোন হামলা রুখতে অ্যান্টি ড্রোন সিস্টেম ব্যবহার করতে চলেছে ভারতীয় সেনা

গত সপ্তাহে রাতে জম্মুর বায়ুসেনার নিয়ন্ত্রণাধীন টেকনিক্যাল এরিয়াতে জোড়া বিস্ফোরণ ঘটেছে। চীন অথবা পাকিস্তানের দিক থেকে আসা শক্তিশালী ড্রোন মারফৎ এই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

এই ঘটনায় সকলের মনেই ফিরে এসেছে পুল‌ওয়ামার আতঙ্ক। তবে কেন্দ্রীয় সরকার মনে করছে এই হামলার মূল চক্রী হতে পারে পাকিস্তান। ড্রোনের মাধ্যমে গত শনিবার রাত দুটো নাগাদ এই বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

এই বিস্ফোরণের শব্দে বহু দূরবর্তী অঞ্চল কেঁপে উঠেছিলো। এই ঘটনায় কেউ হতাহত না হলেও দুইজন আহত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।এই ঘটনার পরেই জম্মু কাশ্মীর পুলিশ প্রচুর পরিমাণ আইইডি নিয়ে এক ব্যক্তিকে ধরেছে,

এই ঘটনায় ওই ব্যক্তি জড়িত কি না সেটা তাকে জেরা করে জানার চেষ্টা চলছে। জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের প্রধান জানিয়েছেন যে এই ঘটনায় মনে করা হচ্ছে লস্কর-ই-তৈবার হাত রয়েছে।

এই ঘটনায় দেশের প্রতিরক্ষা ক্ষেত্র যে ভবিষ্যতে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে তা মেনে নিচ্ছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা।এই আবহে প্রতিরক্ষাব্যবস্থা মজবুত করতে ভারতীয় বায়ুসেনা ১০ টি অ্যান্টি ড্রোন সিস্টেম কেনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

এই অ্যান্টি ড্রোন সিস্টেম ব্যবহার করার ফলে দেশের সীমানা টপকে শত্রুপক্ষের কোন ড্রোন আর ভারতের আকাশে প্রবেশ করতে পারবে না । এই নতুন অ্যান্টি ড্রোন সিস্টেম হবে সম্পূর্ণ লেসার গাইডেড যা শত্রুপক্ষের ড্রোন চিহ্নিত করে আকাশপথেই ধ্বংস করে দিতে সক্ষম হবে।

পাকিস্তান এবং চীন সীমান্তে এই শক্তিশালী অ্যান্টি ড্রোন সিস্টেম ব্যবহার করা হবে। হালকা এই সিস্টেম গাড়ি করেই এক জায়গা থেকে অতি সহজে অন্য জায়গায় নিয়ে যাওয়া সহজ বলে জানিয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.