Breaking News
Home / বিনোদন / তোর মতো ছেলে পেয়ে আমি ধন্য: শ্রাবন্তী

তোর মতো ছেলে পেয়ে আমি ধন্য: শ্রাবন্তী

Advertisement

বর্তমানে চর্চায় উঠে এসেছেন টলিউডের অ’ভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। তার বর্তমান স্বামীর স’ঙ্গে ফের সম্পর্কের টানাপোড়েনের গু’ঞ্জন শোনা যাচ্ছে। তবে তারা দুজনে কেউই প্রকাশ্যে সেসব কিছু স্বীকার করেননি।

তবে কিছুদিন আগে তাদের দুজনের সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট দেখে কিছু গু’ঞ্জন শুরু হয়। তবে সেসব কিছুকে বিশেষ পাত্তা দিচ্ছেন না অ’ভিনেত্রী। বরং তিনি এখন বেশ খুশির মুডেই আছেন। সম্প্রতি তিনি তার একমাত্র ছেলে অ’ভিমন্যুর স’ঙ্গে একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন।

সেই ছবি আবেগঘন ক্যাপশনও দিয়েছেন অ’ভিনেত্রী। তিনি লিখেছেন “তোর মতো ছেলে পেয়ে আমি ধন্য, মা তোকে খুব ভালোবাসে”। সেই ছবিতে অ’ভিনেত্রী শ্রাবন্তীকে দেখা যাচ্ছে কালো সাধারণ টপে। স’ঙ্গে রোদ চশমা রয়েছে।

অন্যদিকে ছেলে অ’ভিমন্যুকে দেখা যাচ্ছে বটল গ্রিন টিশার্টে। তবে তাদের দেখে মনে হচ্ছে তারা শপিং-এ গিয়েছিলেন। তাদের হাতে ছিল শপিং-এর ব্যাগ। আর সেই ছবিটি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

কিছুদিন আগে শ্রাবন্তীর স্বামী রোশন একটি ছবি পোস্ট করেন। সেই ছবিতে দেখা যাচ্ছে একটি ছেলে হাঁটু গেড়ে বসে একটি মেয়েকে একটি আংটি দিয়ে বিয়ের প্রস্তাব দিচ্ছে। আর এই রোমান্টিক ছবিতে রয়েছে অন্য একটি ম্যাসেজ।

ছবির ভিতরে লেখা পড়েই একটু সন্দে’হ জাগতে পারে। ছেলেটি মেয়েটিকে বলছে, “তুমি আমা’র জীবন ধ্বং’স করবে?” উত্তরে মেয়েটি জানিয়েছে, “হ্যাঁ নিশ্চই”। অর্থাৎ বিয়ে করলেই ছেলেদের জীবন ধ্বং’স হয় এমনই বার্তা দিয়েছেন শ্রাবন্তীর স্বামী রোশন সিং। অ’পরদিকে অ’ভিনেত্রীও জবাব দিতে ছাড়েননি।

তিনিও তার সোশ্যাল হ্যান্ডেলে একটি পোস্ট করেন যেখানে নারীদের নিয়ে বার্তা রয়েছে। সেই পোস্টে লেখা রয়েছে, ” তুমি একজন নারীকে ক্ষণিকের জন্য নিচে নামিয়ে তার সত্বাকে ভেঙে ফেললেও নারী তার ভাঙা টুকরো’গু’লো জুড়ে ফের তোমা’র সামনে দাঁড়াবে”। আর এই পোস্টের মাধ্যমে নেটিজেনরা মনে করছেন প্রকাশ্যে দম্পতি কিছু না জানালেও ধীরে ধীরে সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের বাগবিতণ্ডা প্রকাশ পাচ্ছে।

Advertisement

Check Also

অবশেষে ডি’ভোর্সের নোটিশ, যে পক্ষ থেকে নোটিশ পাঠালেন!

Advertisement গুঞ্জনই শেষ পর্যন্ত সত্যি হতে চলেছে, ভাঙতে যাচ্ছে টলিউড তারকা নুসরাত জাহান ও তার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *