অবশেষে ক্লাব ছাড়লেন মেসি, নিশ্চিত করলো বার্সা

স্পোর্টস ডেস্ক: কিছু দিন আগেই খবর এলো ৫০ ভাগ বেতন কমিয়ে হলেও মেসি বার্সেলোনায় থাকছেন। ক্লাবটির সাথে তাঁর নতুন করে ৫ বছরের চুক্তি হতে যাচ্ছে।

তবে আনুষ্ঠানিকভাবে চুক্তি হচ্ছিল না। এবার দিন কয়েক যেতে না যেতেই এলো বার্সা সমর্থকদের মন খারাপের খবর। আর্জেন্টাইন অধিনায়ক লিওনেল মেসিকে বার্সা ছাড়তে হচ্ছে। মেসি স্বেচ্ছায় যাচ্ছেন না, ক্লাবও ছাড়েনি।

তবে বাধ্য হয়েই ক্লাব ছাড়তে হচ্ছে তর্কের খাতিরে ফুটবল বিশ্বের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়কে। মূলত লা লিগার আর্থিক নিয়মের কারণেই প্রিয় ক্লাব ছেড়ে যেতে মেসিকে।

বার্সেলোনা কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। দলের সবচেয়ে বড় তারকার দল ছুটের খবর মূহুর্তের মাঝেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে যায়।

মেসিকে রাখতে নিজেদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছিল বার্সেলোনা। এলএমটেনকে ক্লাবটির নতুন সভাপতি রাজিও করিয়েছিলেন। মেসিও ভালোবাসার প্রতিদান দিতে ৫০ শতাংশ বেতন কাটতে রাজি ছিলেন।

অভিমান ভেঙে বেড়ে ওঠার ক্লাবে থাকতে ‘সম্মত’ হন। কোপা আমেরিকা শিরোপা জেতার পরই মেসির সাথে বার্সার চুক্তি হতে যাওয়ার খরব দেয় স্পেন ও ইউরোপের শীর্ষ কয়েকটি গণমাধ্যম।

মেসিকে দলে রাখতে বার্সার সিনিয়র ফুটবলাররাও নিজেদের বেতন কাটতে রাজি ছিলেন। তবে অনেক জুনিয়র খেলোয়াড়রা সেটি করতে রাজি নন।

বার্সেেলোনা চেয়ে ছিল লা লিগার কর্তৃপক্ষের দিকে। কিন্তুু সেটি আর হলো না লা লিগার আর্থিক নিয়মের কারণেই। লিগ আর্থিক নিয়ম বজায় রাখতে গিয়ে মেসি ও বার্সা দু’পক্ষ মিলেই তাই নিতে হয়েছে ‘কঠিন’ এক সিদ্ধান্ত।

মেসিকে ধরে রাখতে না পারায় বার্সায় দু‍:খ প্রকাশ করেছে সমর্থকদের কাছে। নিজেদের ক্লাবের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে, ভবিষ্যত জীবনের জন্য শুভ কামনা জানিয়েছে বার্সা। তবে মেসি এখনো পর্যন্ত আনুষ্ঠানিক ভাবে কোনো বক্তব্য দেননি।

বার্সার সভাপতি নির্বাচিত হয়ে হোয়ান লাপোর্তা জানিয়ে ছিলেন, তিনি মেসিকে বার্সায় রাখার সর্বোচ্চ চেষ্টা করবেন। আর্জেন্টাইন তারকার সাথে তাঁর একটা সু-সম্পর্ক আছে।

তার কথা মেসি রাখবেন। অবশেষে হয়তো তিনি সফলও হতে যাচ্ছিলেন। মেসিও আস্থা রেখেছিলেন লাপোর্তার প্রতি। কিন্তুু দু’পক্ষের চেষ্টা বিফলে গেলো লা লিগার আর্থিক নিয়মের কারণে। যার জন্য অবশেষে মেসিকে ক্লাব ছাড়তেই হলো।

মেসিকে দলে নিতে এখন বিশ্বের বড় বড় ক্লাবগুলো মুখিয়ে আছে। বিশেষ করে ম্যানসিটি ও পিএসজি। তবে সবচেয়ে এগিয়ে প্যারিস জায়ান্টরা। জানা গেছে মেসির সাথে ইতিমধ্যেই সরাসরি যোগাযোগ করেছে পিএসজি।

আর সেখানে বন্ধু নেইমার জুনিয়র, জাতীয় দলের সতীর্থ ডি মারিয়া, পারেদেস ও স্বদেশী কোচ মাউরিসিও পচেত্তিনো আছেন। যার জন্য সেখানে যাবার সম্ভাবনাই সবচেয়ে বেশি।

অবশ্য বার্সার ঘোষণার পর অন্যান্য ক্লাবগুলোর দৌড় ঝাপও বেড়ে যাবে কয়েকগুণ। তবে শেষ পর্যন্ত কোন ক্লাবকে বেছে নেবেন বিশ্ব ফুটবলের এই বড় তারকা সেটি দেখার অপেক্ষায় সমর্থকেরা। তার জন্য হয়তো আপাতত আরো দু’এক দিন অপেক্ষা করতে হবে তার সমর্থকদেরকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.