সকালের খাবারেই লুকিয়ে আছে পিয়ার রূপের র,হস্য

দেশের জনপ্রিয় মডেল, উপস্থাপক ও অভিনেত্রী জান্নাতুল ফেরদৌস পিয়া। তবে এ সবকিছু ছাপিয়ে বর্তমানে তার সবচেয়ে বড় পরিচয় তিনি এখন মা। চার মাস বয়সী অ্যারেস হাসান নামের এক পুত্র সন্তানের জননী তিনি।

মা হওয়ার পরেও নিজেকে ফিট রাখতে পেরেছেন তিনি। খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তনের কারণেই এমনটাই করতে পেরেছেন জান্নাতুল পিয়া।

তবে চকলেট আর আইসক্রিম খেতে ভালোবাসেন পিয়া। আর কারণে জিমে অতিরিক্ত আধঘণ্টা সময় দিতে হয়। খাদ্যতালিকা থেকে এ দুটোকে বাদ দিতে একেবারেই নারাজ তিনি।

এদিকে নিজের এত ব্যস্ততার মাঝেও রাতে দুই ঘণ্টা পরপর ছেলেকে খাওয়ান। সকালে উঠে দিন শুরু করেন কালিজিরা আর মধু দিয়ে।

এর উপকার জানিয়ে বললেন, আমি সারা বছর ঘুম থেকে উঠে ফ্রেশ হয়ে কালিজিরা আর মধু খাই। এতে আমার আর আমার ছেলের কখনোই ঠাণ্ডা লাগে না। সর্দি–কাশি হয় না। আমি অনেক আগে থেকেই এটা করি।

দুপুরে আর রাতে দুই বেলাই ভাত খান পিয়া। ভাতের সঙ্গে থাকে ডাল, ভর্তা, স্বাভাবিক তরকারি, মুরগির মাংস।

নিয়ম করে অ্যাভোকাডো খান পিয়া। প্রয়োজনীয় ফ্যাটও খান। বললেন, ফ্যাট মানেই কিন্তু খারাপ না। গুড ফ্যাট অত্যন্ত প্রয়োজনীয় আর উপকারী। আমি স্যামন মাছ খাই। বাদাম খাই।

পিয়া জানালেন, প্রচুর পানি খান তিনি। আর খান মৌসুমি ফল। বললেন, ছয় মাস যাক। বাচ্চা অন্য খাবার ধরুক। তিন–চার কেজি অতিরিক্ত যা আছে, ঠিক ঝরিয়ে ফেলব। আপাতত এ নিয়ে মাথাব্যথা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.