পরীমনিকে আদালতে দেখতে এসে যা বললেন শতবর্ষী নানা

রাজধানীর বনানী থানায় দায়ের করা মাদক মামলায় চার দিনের রিমান্ড শেষে চিত্রনায়িকা পরীমনি ও তার সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপুকে আদালতে হাজির করা হয়েছে। এসময় আদালত প্রাঙ্গনে পরীমনিকে একনজর দেখতে চলে এসেছেন তার শতবর্ষী নানা শামছুল হক গাজী।

সাংবাদিকদের বলেন, ‘কতদিন হলো তাকে দেখি না।’ মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় পরীমনিকে আদালতে আনা হয়। তারপর তাকে আদালতের গারদখানায় ঢোকানো হয়। ১২টা ৪৫ মিনিটে গারদখানার সামনে এসে দাঁড়ান পরিমনির নানা। এ সময় সঙ্গে ছিলেন তিনজন আইনজীবী।

আদালক প্রাঙ্গনে দাড়িয়ে নায়িকার নানা জানালেন, পরীমনির এক খালুর সঙ্গে আদালতে এসেছেন তিনি। শামছুল হকের দাবি, তার বয়স ১১০ বছর। কাঁপা কাঁপা কণ্ঠে বলেন, ‘পরীমনি আমার কাছেই বড় হয়েছে।

শেষ বয়সে আমি তার কাছেই থাকছিলাম। মেয়েটার বাপ মা কেউ নাই। আমার কাছেই বড় হয়েছে, মানুষ হয়েছে। ওর জন্য দুশ্চিন্তায় আমার ঘুম হয় না। কেউ নেই ওকে দেখার জন্য।

আমার নিজেরও কিছুদিন অপারেশন হয়েছে। এখনও আমি অসুস্থ। তাকে কতদিন দেখি না। তাই বাধ্য হয়েই একনজর দেখতে আদালতে এসেছি।’

নাতনির জামিন চান কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আদালতে আইনজীবীরা আবেদন করবেন। আশা করি, আদালত জামিন দেবেন। কথা বলার এক পর্যায়ে পুলিশ শামসুল হককে আদালতের ভেতরে নিয়ে যান।

এদিকে, মাদক দ্রব্য আইনে করা মামলায় পরীমনি ও প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিতে আবেদন করেছে মামলার তদন্ত সংস্থা সিআইডি। ঢাকা মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাসের আদালতে এ রিমান্ড শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *