ছোট বেলায় ভোজন গায়েই সংসার টানতেন নেহা কাক্কার, ভিডিও দেখে চোখে জল এলো ভক্তদের

বলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় গায়িকা নেহা কক্কর। ১৯৮৮ সালের ৬ জুন উত্তরাখন্ডের হৃষিকেশে জন্ম গ্রহণ করেন তিনি। সেখান থেকে আজ মুম্বাইয়ের বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে আধিপত্য বিস্তার করা নেহা কক্করের পক্ষে খুব একটা সহজ ছিল না।

বলিউডের একের পর সুপারহিট গানও রয়েছে তার ঝুলিতে। খুব কম সময়ের মধ্যেই বলিউডের প্রথম সারিতে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে দেখিয়েছেন নেহা কক্কর। তবে নিজেকে বলিউডের প্রতিষ্ঠা করে তোলার জন্য প্রচুর স্ট্রাগল করতে হয়েছে নেহাকে।

তাঁর জীবনের কাহিনী বড় বড় সিনেমাকেও হার মানাবে। বলিউডে এত গায়ক-গায়িকাদের মধ্যে নিজের জায়গা করে নেওয়া খুব কঠিন ছিল নেহা কক্করের পক্ষে। গানের প্রতি ছোটো বেলা থেকেই প্রচন্ড আগ্রহ আর ভালোবাসা জন্মেছিল নেহার।

খুবই সামান্য পারিশ্রমিকের বিনিময়ে গান গাইতেন তিনি। মধ্যবিত্ত পরিবারে জন্মানো নেহা কক্কর ঋষিকেশের ভাঙাচোরা একতলা বাড়িতে পুরো পরিবারের সঙ্গে বসবাস করতেন। যদিও সেটা ছিল তাদের ভাড়া বাড়ি।

একটি ঘরেই থাকতেন সকলে মিলে। পরে অবশ্য নেহার বাবা তাদের নিয়ে দিল্লিতে চলে আসে। একটা সময়ে সংসার চালানোর জন্য তার বাবাকে সিঙ্গারা বিক্রি করতে হয়েছিল।

খুব কষ্ট করে তার বাবা তাকে এবং তার ভাই-বোনকে মানুষ করেছেন। একটা সময় নেহা ভজন গাইতেন। গ্রাম গঞ্জের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে গান গেয়ে তিনি মাত্র ১০০টাকা পারিশ্রমিক পেতেন।

নেহার দিদি সোনু কক্করের “বাবুজি যারা ধীরে চলনা” গানটি হিট হওয়ার পরেই নেহা কক্করের পরিবারের আর্থিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়। নেহার জন্মই দিতে চাননি তাঁর মা। কারণ নেহার ইতিমধ্যেই একটি দিদি সোনু ও দাদা টনি ছিল।

কিন্তু অনেকদিন হয়ে যাওয়ার কারণে গ-র্ভ’পাত করতে পারেননি নেহার মা। ছোট থেকেই দিদি সোনুর সাথে গান গাইতেন নেহা। দিদির থেকেই তিনি শিখেছিলেন ভজন গাওয়া। মাত্র ৫০০ টাকা পারিশ্রমিকের বদলে তিনি এই ভজন গান গাইতেন।

সেখান থেকেই ধীরে ধীরে জনপ্রিয় হন আজকের এই নেহা কক্কর। ইন্ডিয়ান আইডলের প্রতিযোগী ছিলেন নেহা। আজ তিনি একে রিয়েলিটি শো’র বিচারক আসনে বসে রয়েছেন। বলিউডে একটি গানের জন্য ৮ লক্ষ টাকা পারিশ্রমিক পান নেহা।

আঁখ মারে, কালা চশমা, দিলবর, ও সাকি সাকি, বলিউডে একাধিক সুপারহিট গান ইতিমধ্যেই বলিউডকে উপহার হিসেবে দিয়েছেন নেহা কক্কর। ২০১৯ সালের ইউটিউব সার্চের জনপ্রিয়তায় সবার প্রথমে রয়েছেন বলিউডের রিমেক কুইন নেহা কক্কর।

অভিনেতা হিমাংশ কোহলির সঙ্গে বিচ্ছেদের পর মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিলেন নেহা। রিয়েলিটি শো এর মঞ্চে কেঁদে ভাসিয়ে ছিলেন তিনি। আদিত্যর সঙ্গে তার বিয়েনিয়ে জল্পনা শুরু হলেও সেই ঘটনাটি সত্যি নয়, সে কথা নিজে জানিয়েছিলেন নেহা কক্কর।

গত বছর ডিসেম্বর মাসে তিনি পাঞ্জাবি গায়ক রোহন প্রীতের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন নেহা। বর্তমানে চুটিয়ে সংসার করছেন তিনি। এ কথা জানতে পারা যায় নেহার ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইল দেখে। রোহন প্রীত তার থেকে ছোট হলেও দুজনের ভালোবাসা সত্যি নজির সৃষ্টি করে এই ব্রেকআপের যুগে।

নিজের জীবনে অনেক কষ্ট করে এত দূরে গিয়েছেন। একজন ভালো গায়িকা হওয়ার পাশাপাশি অনেক বড় মনের মানুষ নেহা কক্কর। বিপদে-আপদে মানুষের পাশে দাঁড়াতে দেখা যায় তাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *