যমজ তিন সন্তানকে বাঁচাতে অসহায় মা-বাবার আকুতি

দরিদ্র পরিবারে জন্ম নেওয়া ৩ যমজ সন্তানকে নিয়ে মহাবিপাকে পড়েছেন ঝিনাইদহের এক পরিবার। অপুষ্টিতে ভুগছে ৩ যমজ শিশু।

সন্তানের দুধের যোগান দিতে গিয়েও অসুস্থ স্ত্রীর জন্য ওষুধ কিনতে অন্যের কাছে হাত পাততে হচ্ছে প্রতিনিয়ত। বাচ্চাগুলোকে নিয়ে খুবই মানবেতর জীবন যাপন করছে ওই পরিবারটি। সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান যমজ পরিবার।

ঝিনাইদহের সদর উপজেলার পাগলাকানাই ইউনিয়নের চরখাজুরা গ্রামেরই দরিদ্র ভ্যানচালক করিম আলী। একটি টিনের খুপড়ি ঘরে কোন রকম দিনানিপাত করেন তারা।

স্ত্রী আলোমতি, মেয়ে কনা, কনিকা এবং মাকে নিয়ে বেশ চলছিল তার পরিবার। পরবর্তিতে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে গত ২৪শে মার্চ স্ত্রীর কোলজুড়ে তিনটি ছেলে সন্তান জন্ম নেয়। নাম রাখা হয় আহাদ, আরিফ ও

আলিফ। একদিকে সন্তাদের খাদ্য দুধ ক্রয় অন্যদিকে অসুস্থ স্ত্রীর চিকিৎসা খরচ মেটাতে হিমশিম খাচ্ছে ভ্যানচালক করিম।

আব্দুল করিমের প্রতিবেশীরা জানান, ‘তিনটি বাচ্চা বাদেও সংসারে আছে ৫জন খানেওয়ালা। এদের মতো বিপদ যেন আর কারো জীবনে না আসে। খাদ্যের অভাবে বাচ্চাগুলো অপুষ্টিতে ভুগছে। এভাবে চললে বাচ্চাগুলোর বড় ক্ষতি হয়ে যেতে পারে।’

ভ্যানচালক আব্দুল করিম জানান, পুত্র সন্তানের স্বপ্ন পূরণ হলেও দুঃখজনক হলেও সত্য অভাবের এই সংসারে যমজ বাচ্চা তিনটি যেন এখন মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা। বাচ্চার মা অসুস্থ থাকায় বুকের দুধ পায় না তারা।

আবার দোকান থেকে দুধ কিনে খাওয়ানোর মত সামর্থ নেই। ওরা এখন প্রি-বায়োমিল দুধ খায়। আমি ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েছি। কেই আর ধারও দিচ্ছে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *