পরীমণিকে এক নজর দেখতে কাশিমপুর কারাগারের সামনে মানুষের ঢল

সময়ের সাথে সাথে পাল্লা দিয়ে যে কয়জন অভিনেত্রী বিনোদন প্রেমীদের হৃদয়ের মণিকোঠায় জায়গা করে নিয়েছেন তাঁর মধ্যে পরীমনি অন্যতম। এই পর্যন্ত ভিন্নধর্মী চরিত্রে অভিনয় করে তিনি আলোচনায় এসেছেন বহুবার।

ফের খবরের শিরোনাম হলেন এই বিউটি কুইন। নতুন খবর হচ্ছে, মাদক মামলায় জামিন না পেয়ে কারাগারে যাওয়া চিত্রনায়িকা পরীমণিকে দেখতে গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগারের সামনে ছিল মানুষের ঢল।

বেশিরভাগই এসেছিলেন বাংলা সিনেমার এই নায়িকাকে এক নজর দেখতে পাওয়ার আশায়। তবে, পুলিশের প্রিজন ভ্যানে কড়া নিরাপত্তায় তাকে কারাগারে নিয়ে যাওয়ায় পরীমণির দেখা পাননি কেউ।

শুক্রবার (১৩ আগস্ট) সন্ধ্যায় তাকে কাশিমপুর মহিলা কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় কারাগারের ফটকের সামনে ছিল উৎসুক জনতার উপচে পড়া ভিড়। সেখানে আসা লোকজন জানান, পরীমণিকে এই কারাগারে আনা হবে জানতে পেরে তারা এসেছেন।

বেশিরভাগই পরীমণিকে সামনে থেকে দেখতে পাবেন বলে এসেছেন। কারাগারের সামনে আসা এক বৃদ্ধ জানান, এতদিন তাকে টেলিভিশনে দেখেছি। সামনে থেকে কখনো দেখিনি। শুনেছি তাকে কারাগারে আনা হচ্ছে তাই দেখতে আসলাম।

তবে মনে হচ্ছে না দেখতে পারবো। অন্য এক তরুণ জানান, জনপ্রিয় কোনো নায়িকা এভাবে জেলে আনার ঘটনা এই প্রথম তাই দেখতে আসলাম। কারাগারে মানুষের ঢল সামলাতে দুপুরের পর থেকেই কাশিমপুর কারাগারের সামনে নিরাপত্তা জোরদার করে পুলিশ ও কারা কর্তৃপক্ষ।

শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সতর্ক অবস্থানে ছিলেন তারা। সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে কড়া পুলিশি পাহাড়ায় পরীমণিকে বহন করা প্রিজন ভ্যান কাশিমপুর কারাগারে প্রবেশ করে। যেখানে বাইরে থেকে পরীমণিকে দেখা যায়নি।

তাকে দেখতে না পেয়ে সেখানে অপেক্ষারত অনেকেই হতাশা প্রকাশ করেন। এর আগে, চিত্রনায়িকা পরীমণি ও তার সহযোগী আশরাফুল ইসলাম দীপুর জামিন নামঞ্জুর করে তাদের কারাগারে

পাঠানোর নির্দেশ দেন ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ধীমান চন্দ্র মণ্ডল। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে করা মামলায় এই আদেশ দেন আদালত। প্রযোজক রাজ ও তার সহযোগী সবুজের বেলায়ও একই আদেশ দেওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.