কারাগারে গিয়েও বিশ্বসেরা তারকাদের তালিকায় পরীমনি

ঢাকাই ছবির বিতর্কিত এবং আলোচিত অভিনেত্রী হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে চিত্রনায়িকা পরীমনিকে উৎশৃংখল এবং বেপরোয়া জীবনযাপন এর পরিসমাপ্তি ঘটেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরা পড়ার পর মূলত

তার বাসায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ দ্রব্য উদ্ধার করে এবং এরপর রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ সেখানে নানান গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে চিত্র নায়িকা পরীমনি এবং প্রভাবশালীদের সাথে তার সম্পর্ক

তারা প্রত্যেকেই রঙিন দুনিয়ার স্বপ্নের মানুষ। নিজেদের গান, অভিনয় আর নানারকম পারদর্শিতায় ভক্তের মনে এমন একটা জায়গা দখল করে রাখেন তারা যা সাধারণের ধরাছোঁয়ার অনেক বাইরে। কিন্তু বাস্তবেও ঠিক এমনটাই নিখুঁত কি হন তারা!

আসলে সবার জীবন ঠিক এমনটা নয়। অনেকে খ্যাতির শিখরে থেকেও কাটাতে চান এলোমেলো জীবন। নানা অপরাধে জড়িয়ে নাম লিখিয়েছেন অপরাধের খাতায়। এমন সব সেলেবদের কথা মনে করতেই চোখের সামনে ভেসে উঠবে পর্দা কাঁপানো অসংখ্য তারকার প্রতিচ্ছবি।

অনেক সেলিব্রেটি তারকার বাবা বা মা কিংবা দুজনই ছিলেন জেল খাটা আসামি। আবার অনেকেই আছেন যারা আদর্শ পরিবারে বেড়ে উঠেও খ্যাতির আদিখ্যেতায় অপরাধ জগতে পা বাড়ান।

হলিউডের ফ্যান্টাসি জগতে এমন ঘটনা অহরহই ঘটছে। এমনি এক হলিউড তারকা আমান্ডা বেনিস। বেপরোয়া গাড়ি চালানো এবং মা’দ’ক গ্রহণের অভিযোগে দিয়েছেন অর্থদণ্ড এবং ভোগ করেছেন কারাবাস।

সেই তালিকা থেকে বাদ যাননি কানাডিয়ান পপস্টার জাস্টিন বিবারও। ভক্তদের গায়ে থুথু ফেলা, প্রতিবেশীর বাড়িতে ডিম ছোড়া, ম’দ্য’প অবস্থায় গাড়ি চালানো, যুদ্ধাপরাধীদের সম্মান জানানো ছাড়াও অনেক বিতর্কিত অবস্থা তৈরি করেন।

আশির দশকের দুনিয়া কাঁপানো সংগীতশিল্পী এলভিস প্রিসলি। মাত্র ৪২ বছর বয়সে ১৯৭৭ সালে মৃত্যুবরণ করেন ‘দ্য কিং অব রক অ্যান্ড রোল’ খ্যাত মার্কিন গায়ক, সংগীত পরিচালক ও অভিনেতা এলভিস প্রিসলি।

তাঁর অকালমৃত্যুর প্রকৃত কারণ নিয়ে ধোঁয়াশা থাকলেও ধারণা করা হয়, মাত্রাতিরিক্ত মা’দ’ক সে’ব’নে’র ফলে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছিলেন তুমুল জনপ্রিয় এই তারকা সংগীতশিল্পী।

মার্কিন কমেডিয়ান অভিনেতা টিম অ্যালেনের কথাই ধরুন। মাত্র ২৫ বছর বয়সে জেলে কাটাতে হয়। অপরাধ তিনি কো’কে’ন পাচারের সময় ধরা পড়েন। তার দুই বছরের জেল হয়। জ্যাকি চ্যানের ছেলে জেসি চ্যান।

মা’দ’ক রা’খার দায়ে কুংফু তারকা জ্যাকি চ্যানের ছেলেকে ছয় মাসের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছে চীনের একটি আদালত। বলিউডপাড়ায়ও অপরাধী সেলিব্রেটিদের সংখ্যা কম নয়।

জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘ল্যাকমে’র ফ্যাশন শো-তে নিজের স্ত্রী টুইঙ্কল খান্নাকে দিয়ে প্যান্টের জিপ খোলানোর জন্য বেশ সমালোচিত হয়েছিলেন অক্ষয় কুমার। পাবলিক শো-তে এমন আচরণের জন্য জেলে যেতে হয়েছিল টুইঙ্কলকে।পরিচারিকাকে ধ’র্ষ’ণে’র অভিযোগে ২০০৯ সালে গ্রেফতার করা হয় ‘গ্যাংস্টার

অভিনেতা শাইনিকে। দীর্ঘ সময় কারাগারে কাটাতে হয় তাকে। মাদক পাচারের অভিযোগ ওঠে ফারদিন খানের বিরুদ্ধে। ২০০১ সালে লক্ষ টাকার কো’কে’ন’সহ ফারদিনকে গ্রেফতার করে নারকোটিক কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) গোয়েন্দারা।

২০০৬ সালে বেলাগাম গতিতে ড্রাইভিং ও দুই পথচারীকে ধাক্কা দেওয়ার অভিযোগ ওঠে জন আব্রাহামের বিরুদ্ধে। ৬ বছর মামলা চলার পর শেষে ১৫ দিনের জন্য জেলে যেতে হয়েছিল মেয়েদের ঘুম হারাম করা জনকে।

বলিউডের ভাইজান খ্যাত সালমানের বিরুদ্ধে তিন দফায় বিরল প্রজাতির পাঁচটি কৃষ্ণসার হরিণ হ’ত্যা’র অভিযোগ ওঠে। যার শুরুটা হয়েছিল ১৯৯৮ সালে একটি শুটিং ইউনিট থেকে। সেই মামলায় সালমানকে পাঁচ বছরের জেল ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে যোধপুর আদালত।

এবার সে তালিকায় নাম লেখালেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী পরীমনির নাম। ৪ আগস্ট এই নায়িকাও গ্রেপ্তার হন। বনানীর বাসা থেকে গ্রেপ্তারের সময় তার কাছ থেকেও মা’দ’ক জব্দ করা হয়। পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি পরীমণিকে দুই দফায় ছয় দিন রিমান্ডের পর গতকাল শুক্রবার কারাগারে পাঠিয়েছে।

চিত্র নায়িকা পরিমনির গ্রেপ্তারের পর বিভিন্ন তথ্য উঠে আসছে গণমাধ্যমগুলোতে এতে করে মানুষ একদিকে যেমন তীর্যক মন্তব্য করছে অন্যদিকে আবার পরীমনি পক্ষে কথা বলছে অনেকেই তবে এই অভিনেত্রী গ্রেপ্তার হওয়ার পর জানা গেছে অনেক অবাক করা তথ্য এবং তার মোবাইল এবং ল্যাপটপ থেকে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে গোয়েন্দা কর্মকর্তারা যার মাধ্যমে অনেক কিছু জানা যাচ্ছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *