‘শত্রুপক্ষ উঠেপড়ে লেগেছে’, মুখ খুললেন পরীমণির খালা

র‌্যা’বের হাতে বিপুল পরিমাণ মা’দকসহ আ’ট’কের পর ঢাকাই ছবির আ’লোচিত অ’ভিনেত্রী পরীমণির স্বজনরা বলছেন, এটি একটি নতুন ষড়ষন্ত্র। তাকে ফাঁ’সাতেই তার বি’রুদ্ধে শত্রপক্ষ উঠেপড়ে লেগেছে। সরেজমিনে পিরোজপুরে ভান্ডারিয়া উপজে’লার ইকরি ইউনিয়নের সিংহখালী

গ্রামে কথা হয় পরীমণির ছোট খালা তাসলিমা বেগম ও খালু জসিম উদ্দিসহ স্বজন ও স্থানীয়দের সঙ্গে। তাদের দাবি, পরীমণির বি’রুদ্ধে ষ’ড়যন্ত্র হয়েছে। ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন এতে জ’ড়িত। এ বি’ষয়ে জানতে চাইলে পরীমণির খালা তাসলিমা বেগম গণমাধ্যমকে জানান, ঢাকায় যাদের সঙ্গে স্মৃ’তির স’ম্পর্ক গড়ে উঠেছে, তাদের সঙ্গে তার টাকার স’ম্পর্ক।

তারা কেউই এখন চাইবে না তার ভালো হোক। তাই আমি মনে করি, ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিনসহ তার আশপাশে যারা ছিল, তারাই এখন ষ’ড়যন্ত্র করে স্মৃ’তিকে ফাঁ’সিয়েছে। এখন এই সুযোগে নাসির উদ্দিন মা’মলা করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে। আম’রা তার মুক্তি চাই।

পরীমণির বাবা মনিরুল ইস’লামের বাড়ি নড়াইল জে’লার কালিয়া উপজে’লার সালাবাদ ইউনিয়নের বাকা গ্রামে। পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজে’লার ভগীরথপুর পু’লিশ ফাঁ’ড়িতে কর্ম’রত ছিলেন তিনি। পার্শ্ববর্তী সিংহখালী গ্রামের বাসিন্দা সামছুল হক গাজীর বড় মে’য়ে সালমা সুলতানাকে (পরীমণির মা) বিয়ে করেন তিনি। পরীমণির বাবা-মা দুজনই মা’রা যাওয়ার পর নানার বাড়িতেই থেকে যান তিনি।

পরীর চাচাতো খালা নুরজাহান বেগম বলেন, আমা’র চাচাতো বোনের মে’য়ে স্মৃ’তি। তার নানি ছিলেন প্রধান শিক্ষক। তার বংশের সবাই ছিলেন শিক্ষক। এখন সে ঢাকায় গিয়ে কী’ করে। আম’রা জানি না। আম’রা তার খা’রাপটা দেখিনি কখনো। তবে যেখানেই যাই, সবাই তার নামে খা’রাপ বলছে।

আরেক প্রতিবেশী রহমত মিয়া বলেন, সে এখানে লেখাপড়া করে মানুষ হইছে। প্রাই’মা’রিতে বৃত্তি পেয়ে ভগীরথপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করে। তারপর ভান্ডারিয়া থেকে চলে যায়। আম’রা জানি তার ম’দ-গাঁ’জা খাওয়ার মতো কোনো রেকর্ড নেই। এটা নতুন কোনো ষ’ড়যন্ত্র হতে পারে।

আব্দুর রহিম নামের আরেক প্রতিবেশী বলেন, মে’য়েটা (পরীমণি) ভান্ডারিয়া থেকে এসএসসি পাস করার পর ঢাকায় গিয়ে যোগ দেয় অ’ভিনয়জগতে। চোখে যেটা দেখিনাই, সেটা কী’ভাবে বলব। তবে র‌্যা’ব যেভাবে তাকে ধরেছে, তাতে মনে হয় কোনো অ’বৈধ কাজ করেছে বলেই ধরেছে। তবে সে যেন আর কোনো অ’পরাধে লিপ্ত না হয়, সেটা আমাদের অনুরোধ।

উল্লেখ্য, গত ৪ আগস্ট বিকেলে ঢাকাই সিনেমা’র আ’লোচিত অ’ভিনেত্রী পরীমনির বনানীর বাসায় অ’ভিযান চা’লায় র‌্যা’বের গো’য়েন্দা দলের সদস্যরা। প্রায় ৪ ঘণ্টার অ’ভিযান শেষে রাত ৮টার দিকে তাকে আ’ট’ক করে র‌্যা’ব সদর দপ্তরে নিয়ে যাওয়া হয়। পরের দিন পরীমনির বি’রুদ্ধে মা’দকদ্রব্য আইনে একটি মা’মলা করে র‌্যা’ব।

গ্রে’ফতারের পর এতদিন তিনি সিআইডি হেফাজতে ছিলেন। দুই ধাপে ৬ দিন রি’মান্ডেও নেওয়া হয়েছিল তাকে। এরপর শুক্রবার তাকে আ’দালতে হাজির করা হয়। পরীমনির আইনজীবী জা’মিন চাইলেও আ’দালত সেই আবেদন নাকচ করে দেন। পাঠানো হয় গাজীপুরের কাশিমপুর মহিলা কেন্দ্রীয় কা’রাগারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *