‘দুটো বিয়ে না হলেই নয়’, শ্রীময়ী ধারাবাহিকের নাম বদলে ‘ডাবল বিয়ে’ রাখা হোক, দাবি নেটিজেনদের‘

আনন্দ নিকেতনে আরও একবার খুশির সানাই শোনা যেতে চলেছে। অনিন্দ্য, জুন, ডিংকা, অর্নার পর এবার বিয়ের পিঁড়িতে খোদ শ্রীময়ী (Sreemoyee)! ধারাবাহিকের এই টুইস্ট অবশ্য দর্শকের একাংশ বেশ ইতিবাচক ভঙ্গিতেই গ্রহণ করেছেন বটে,

তবে এতে কিন্তু মিমাররা বেশ ভালোমতোই মিমের কনটেন্ট পেয়ে গিয়েছেন! আজকাল সোশ্যাল মিডিয়ায় চোখ রাখলেই এমনতরো মজার মজার মিম বেশ চোখে পড়ছে।

শ্রীময়ী ধারাবাহিকের গল্পকার লীনা গঙ্গোপাধ্যায় ইতিমধ্যেইই ধারাবাহিকের বেশিরভাগ চরিত্রকে দ্বিতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে বসিয়েছেন। অনিন্দ্য, জুন, ডিংকা, অর্না – সকলেই ২ বার বিয়ে করে ফেলেছে।

এখন শুধু বাদ রয়েছে জাম্বো আর দিঠি! তবে মিমারদের প্রত্যাশা, অঙ্কিতাকে ছেড়ে জাম্বোকে যেহেতু ইতিমধ্যেই বিদেশে পাঠিয়ে দিয়েছেন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়, অতএব ভবিষ্যতে তারও দ্বিতীয় বউ নিয়ে ফিরে আসার সম্পূর্ণ সম্ভাবনা রয়েছে!

এই ধারাবাহিকটি ক্রমেই যেন দ্বিতীয় বিবাহ নির্ভর ধারাবাহিক হয়ে উঠছে! আর এতেই কার্যত মিম কনটেন্ট পেয়ে গিয়েছেন একদল মিমার। এই যেমন হালফিলে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি মিম বেশ ভাইরাল হয়েছে।

সেখানে পরিবারের সকলের দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে বেশ চিন্তিত দেখাচ্ছে দিঠিকে। কারণ পারিবারিক প্রথা মেনে তার বাবা, দাদা, বৌদি দুটো করে বিয়ে সেরে ফেলেছেন। এমনকি এইবার মাও ২ বার বিয়ে করতে চলেছেন!

দিঠির আশঙ্কা, সেও যদি ২ বার বিয়ে না করে তাহলে পরিবারের সম্মান যাবে কোথায়? শ্রীময়ী এবং রোহিত সেনের বিয়ের পর ফুলশয্যার প্রোমো প্রকাশ্যে আসতেই কার্যত দুই দলে ভাগ হয়ে গিয়েছেন নেটিজেনরা।

একদল মনে করছেন ধারাবাহিকের এই পর্যায়টি সমাজে নতুন বার্তা দেবে। কারণ আজও এই সমাজে বহু শ্রীময়ী রয়েছেন যারা সমাজের ভয়ে, পরিবারের কথা চিন্তা করে আজীবন আত্মবলিদান দিয়ে যান।

আবার কেউ যদি নিজের কথা চিন্তা করে নিজের মতো করে বাঁচার পরিকল্পনা করেন, তাহলে তার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান এই সমাজের মানুষেরাই। তাদের প্রতি সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি বদলাবে এই ধারাবাহিক।

তবে তাই বলে ধারাবাহিকের সকল সদস্যের দুটো করে বিয়ের কনসেপ্টকে মোটেই সমর্থন জানাচ্ছেন না নেটিজেনদের একাংশ। এই যেমন জনৈক নেটিজেন শ্রীময়ী ধারাবাহিকের নতুন প্রোমো দেখে কমেন্ট করেছেন, “ইহা একটা বারোভাতারী মার্কা সিরিয়াল। সব গুলো ডবল বিয়ে করছে! অনিন্দ্যর ডাবল বিয়ে, জুনের ডাবল বিয়ে, ডিংকার ডবল বিয়ে, অর্নার ডবল বিয়ে, শ্রীময়ীর ডবল বিয়ে, ওদিকে আবার শ্রীময়ীর বড় ছেলে বড় বৌমার ডিভোর্স হয়ে যাচ্ছে, আর কেয়াকে তো ছেড়েই দিল ওটাও তো বিয়ে করবে ভবিষ্যতে, বলছি ওই বুড়ো বুড়ি দুটো আছে ও দুটোকেও বাদ রাখলেন কেন ওদের বিয়ে দিয়ে দিন ডবল করে! সিরিয়াল টার নাম ডবল বিয়ে হওয়া উচিত ছিল!”

যদিও শ্রীময়ীর বিরুদ্ধে মন্তব্যকারীদের সপাটে জবাব দিচ্ছেন তার সমর্থকরা। “জুন আন্টি অনিন্দ্য দা কে বিয়ে করলে কারোর সমস্যা নেই, শ্রীময়ী রোহিত আঙ্কেলকে বিয়ে করলেই যত সমস্যা!! কেন ব্রো?? জুনের তো তাও ম্যারেড থাকা অবস্থায় অনিন্দ্য দা র সাথে রিলেশন ছিলো, কিন্তু শ্রীময়ী তো ডিভোর্সড, তাহলে সমস্যা কোথায় ভাই! মানুষের এত চুল্কানি ক্যান!! নাকি সবাই এটা প্রত্যাশা করে যে সে তিনটে বড় বড় বাচ্চার মা বলে বাকি জীবনটা সন্যাস নিয়ে কাটাবে!”, মন্তব্য করেছেন শ্রীময়ীর জনৈক অনুরাগী।

জনৈক সমর্থনকারী মন্তব্য করেছেন, “ধারাবাহিকের ঘটনা ও বাস্তব সমাজের মধ্যে একটা সম্পর্ক থাকে। ভাগ্যিস ধারাবাহিকে এমন একটা ঘটনা উপস্থাপন করা হয়েছে। সমাজের সমস্যা গুলো নয়তো বোঝা যেতনা।

ঘটনা ঘটার কারণ যতক্ষণ পাওয়া যায় ততক্ষণ সেটা অদ্ভুত বা ন্যাকামি হয়ে যায় না। শ্রীময়ী অন্যান্য ধারাবাহিকগুলির থেকে যথেষ্ট বাস্তব চিত্র ফুটিয়ে তুলতে পেরেছে! বয়স বেশী হওয়ায় ওনার সিদ্ধান্ত যেমন ধারাবাহিকের কিছু অ্যাবনর্ম্যাল মানুষের পছন্দ হয় নি, উৎশৃঙ্খলতা মনে হয়েছে। তেমনি বাস্তব সমাজের মানুষগুলির ও এতে যুক্তিহীন আপত্তি রয়েছে। ধারাবাহিকটি বাস্তবতা মেলাতে পুরোপুরি সক্ষম হয়েছে।”

অপর আরেক নেটিজেন শ্রীময়ীকে সমর্থন করে লিখেছেন, “আমি বাংলা সিরিয়াল একদমই দেখিনা, সিরিয়ালগুলো তে মেয়েদের খুব ছোটো করা হয়। বরের অন্য কারুর সঙ্গে প্রেম থাকবে, তবু সে শ্বশুর, শ্বাশুড়ি, বরের মন জুগিয়ে চলবে, একের পর এক পরীক্ষা দিয়ে যাবে। শেষে বরকে ক্ষমা করে দেবে। মেয়েদেরও যে অনুভূতি আছে, সব সময় সব অন্যায়কে মেনে নেওয়া যে ঠিক নয়, এটা দেখানোর জন্য শ্রীময়ীকে ধন্যবাদ। ভালোবাসাটা এত সুন্দর করে তুলে ধরার জন্য অনেক ধন্যবাদ তাকে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *