অচল হয়ে গেল গ্রহাণু থেকে পৃথিবীকে রক্ষাকারী Arecibo টেলিস্কোপ, ঘোর চিন্তায় বিজ্ঞান-জগৎ

অচল হয়ে গেল বিখ্যাত আরেকিবো *(Arecibo) টেলিস্কোপ। গত ১ ডিসেম্বর থেকে বিশালাকার এই টেলিস্কোপ পুরোপুরি ভাবে কাজ করা বন্ধ করে দিয়েছে। কয়েক দশক ধরে মহাকাশের নানা রহস্য উন্মোচনের পাশাপাশি পৃথিবীর দিকে কোন কোন গ্রহাণু (Meteor) ধেয়ে আসছে,

তা এর মাধ্যমেই খবর রাখতেন মহাকাশ বিজ্ঞানীরা। দলে গ্রহাণুর ‘আক্রমণ’ থেকে এটিই ছিল পৃথিবীর অন্যম রক্ষাকবচ। কিন্তু হঠাৎ করে এটি অচল হয়ে যাওয়ায় চিন্তায় রয়েছেন বিজ্ঞানীরা। এই আরেকিবো টেলিস্কোপটি পোর্তো রিকোয় অবস্থিত।

কিন্তু এর ৯০০ তনের প্ল্যাটফর্মটি সম্প্রতি ৪০০ ফিট নিচে থাকা রিফ্লেক্টর ডিশের ওপর ভেঙে পরে। ফলে এই টেলিস্কোপটি বেশ ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে অচল হয়ে যায়। এই আরেকিবো পৃথিবীর সবচেয়ে বড় রেডিও টেলিস্কোপ।

দীর্ঘ সময় ধরে এই টেলিস্কোপের সাহায্যে মহাকাশের নানা রহস্য নিয়ে কাজ করা মিটিওরোলজিস্ট এডা মোনজন জানান, ‘এই শক্তিশালী টেলিস্কোপটিকে রক্ষা করার অনেক চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু আমাদের কোনও প্রচেষ্টা কাজে আসেনি। যেভাবে এটি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তাতে আর এটি ঠিক হবে না।’

প্রসঙ্গত, এতদিন এই টেলিস্কোপের সাহায্যেই পৃথিবীর কাছাকাছি থাকা গ্রহাণুগুলির দিকে নজর রাখতেন বিজ্ঞানীরা। কোন গ্রহাণু পৃথিবীর কত কাছে আসবে, তা এই টেলিস্কোপের সাহায্যেই জানতে পারতেন তারা।

কিন্তু বর্তমানে এই আরেকিবো অচল হয়ে পরায় বেশ চিন্তায় তারা। বিজ্ঞানীদের দাবি আরেকিবোর জায়গা নেওয়ার ক্ষমতা এই মুহূর্তে আর কোনও টেলিস্কোপের নেই। এই টেলিস্কোপ থেকে আলোর তরঙ্গ মহাকাশে পাঠানো হতো।

সেই তরঙ্গ কোনও বস্তুর গায়ে লেগে ফিরলে এর বৃহৎ রাডারে তা ধরা পরত। ফলে পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসা যেকোনও বস্তু সম্পর্কে জানতে পারতেন বিজ্ঞানীরা। এখন নতুন কোনও একই রকম শক্তিশালী টেলিস্কোপ তৈরি না হওয়া পর্যন্ত কীভাবে মহাকাশের বিপদের ওপর নজর রাখা হবে, তা নিয়ে চিন্তায় বিজ্ঞানীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *