সেদিন না আসতে পারলে পুরো ফেঁসে যেতাম: ফারিন

এবার ঈদে প্রায় দুই ডজনের মতো নাট’কে দেখা গিয়েছে সময়ের জনপ্রিয় অ’ভিনেত্রী তাসনিয়া ফারিণকে। তারমধ্যে বেশ কিছু নাট’ক থেকে বেশ ভালো সাড়া পেয়েছেন এবং প্রশংসা কুড়িয়েছেন। অনেকেই এরমধ্যে শুটিংয়ে অংশ নিলেও কাজে ফেরেননি তিনি। তবে চলতি সপ্তাহেই ফিরবেন বলে জানান এই নায়িকা।

তার ভাষ্য, এবার ঈদে আলহাম’দুলিল্লাহ অনেক ভালো সাড়া পেয়েছি। অনেকের কাছ থেকে প্রশংসা পেয়েছি আর দর্শকের ভালোবাসা তো আছেই। এবার একটু চ্যালেঞ্জ নিয়েছিলাম যে গতানুগতিক কাজের বাইরে একটু ব্যতিক্রম কিছু করব; সেটাই করেছি। পারিবারিক এবং সিরিয়াস গল্পকেই এবার একটু বেশি প্রাধান্য দিয়েছি।

দর্শকদের কাছ থেকে ভালো রেসপন্সও পেয়েছি। জানালেন, আগামী ২০ আগস্ট শুটিংয়ে ফিরবেন তিনি। এখন তিনি ব্যস্ত রয়েছেন তার মুক্তি প্রতীক্ষিত সিনেমা ‘নেটওয়ার্কের বাইরে’, যেটি পরিচালনা করেছেন মিজানুর রহমান আরিয়ান। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এর বিভিন্ন প্রচারণায় অংশ নিচ্ছেন।

ফারিণ বলেন, ‘নেটওয়ার্কের বাইরে’ কে আসলে আমি সিনেমা বলবো না, এটা একটা ওয়েব ফিল্ম। তবে এটি পুরো সিনেমা’র আদলেই হয়েছে। আমা’র কাছে তো সিনেমা মানে বড় পর্দা। এটা যেহেতু ওটিটিতে মুক্তি পাচ্ছে তার মানে এটা ওয়েব কন্টেন্ট। কাজটির জন্য আরিয়ান ভাই এবং পুরো টিম অনেক বেশি ক’ষ্ট করেছেন,

পরিশ্রম করেছেন, খেটেছেন। সবার অনেক পরিশ্রমের একটা ফল। চার বন্ধুর ট্রিপ নিয়েই এই গল্প। তাদের এই ট্রিপের মধ্যেই বিভিন্ন ঘটনার মাধ্যমে এখানে বাকি চরিত্রগুলো আসে। এখানে বন্ধুত্বের গল্প আছে, ভালোবাসার গল্প আছে, ক্রাইসিসের গল্প আছে । এখানে আমা’র অংশ খুব বেশি না হলেও যতটুকু আছে চেষ্টা করেছি ভালো’ভাবে করার। দর্শকদের ভালো লাগবে বলেই বিশ্বা’স করি।’

অ’ভিজ্ঞতা জানাতে গিয়ে এই তারকা বলেন, ‘আম’রা যখন কক্সবাজারে শুটিং করি তখন বেশ মজা হয়েছে। তবে মজার চেয়ে ক’ষ্টও হয়েছে বেশ, শুটিং করতে গিয়ে। এটা যেন পুরো সিনেমা’র কাহিনি। আমা’র অংশের শুটিং শেষ করে কক্সবাজার থেকে ঢাকায় ফিরবো তখন, বিকেল ৫ টায় আমা’র ফ্লাইট ছিলো। আমি কক্সবাজার

এয়ারপোর্টে ঢুকলাম, দৌড়ে আসতে আসতে দেখি বিমান টাটা বাই বাই জানিয়ে আমা’র চোখের সামনে উড়ে চলে গেলো। এটাই ছিলো শেষ ফ্লাইট। আমাকে দ্রুত ঢাকায় ফিরতে হবে কারণ পরদিনই আবার আমা’র অন্য কাজের শুটিং ছিলো। আমি তখন একা ছিলাম, বুঝতে পারছিলাম না কি করবো।

পরে জানতে পারি রাতে আরেকটা ই’মা’রজেন্সি ফ্লাইট আছে তাও সেটার বোর্ডিং পাস শেষ, দরজা লাগিয়ে দিবে; এমন সময় আমি দৌড়ে গেলাম। এটাতে আসারও কোনো অ’পশন ছিলো না। কোনো সিট ফাঁকা ছিলো না। পরে তারা যখন দরজা লাগিয়ে দিচ্ছিলো তখন অনেক অনুরোধ করার পর উনারা রাজি হন। তারা আমাকে চিনতে

পেরেছিলো বলে সেই সম্মানটুকু দেখিয়ে আমা’র আমা’র আসার ব্যবস্থা করে দেয়। ভিতরে একটা ভিআইপি সিটে বসার ব্যবস্থাও করে দেন। আমা’র জীবনে কখনও এমন পরিস্থিতিতে পড়িনি, এবারই প্রথম। সেদিন না আসতে পারলে পুরো ফেঁ’সে যেতাম। আমি তো একা ট্রাভেল করতেই খুব ভ’য় পাই, সেখানে এগুলো ফেইস করতে হয়েছে। এই ঘটনা আমি কখনো ভুলবো না।

‘নেটওয়ার্কের বাইরে’ মুক্তি পাচ্ছে ১৯ আগস্ট, ওটিটি প্লাটফর্ম চরকিতে। এখানে তাসনিয়া ফারিণ ছাড়াও অ’ভিনয় করেছেন শরীফুল রাজ, খায়রুল বাসার, জুনায়েদ বোগদাদী, নাজিয়া হক অর্ষা, তাসনুভা তিশা, নাজিফা তুষি প্রমুখ। সিনেমাটি দর্শক কেন দেখবে, এমন প্রশ্নে ফারিণের উত্তর, আমাদের সবার জীবনেই কিন্তু কম বেশি বন্ধু আছে। এই ছবিটাতে দর্শকরা বন্ধুত্বের মূল্য স’ম্পর্কে জানতে পারবে, বুঝতে পারবে।

বন্ধুদের সঙ্গে ঘুরতে যাওয়ার আনন্দ, মজা, স্যাক্রিফাইস সবকিছুই দর্শকরা নিজেদের সঙ্গে মেলাতে পারবে। দেখার পর মনে হবে যে, ইশ! বন্ধুদের সঙ্গে যদি ঘুরতে যেতে পারতাম! এই করো’নার কারণে কিন্তু আম’রা সেটা করতে পারছি না অনেকেই। এরকম অনেক কিছুই মনে করাবে বন্ধু স’ম্পর্কে।

আমা’র মনে হয় এটা দেখলে দর্শকরা আলাদা একটা ফ্লেভা’র পাবে। শুটিংয়ে ফেরা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ২০ তারিখ একটি কাজে অংশ নেবো। আর ঈদের সময় অনেক চাপ থাকে। এখন তো সেই প্রেশারটা নেই, তাই খুব বেশি কাজ করবো না। ভালো কিছু পেলেই তবে করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *