নিজে দাঁড়িয়ে থেকে প্রে’মিকার সঙ্গে ৬৬ বছরের বাবার বিয়ে দিল ছে’লে

এক মিষ্টি প্রে’মের গল্প অবশেষে সম্পূর্ণতা পেল । প্রকৃত অর্থেই আধুনিক আর প্রগতিশীল হওয়ার লক্ষ্যে আরও একধাপ এগিয়ে গেল আমাদের এই সমাজ । নিঃসঙ্গ বাবা’কে ফের স’ম্পর্কের মধুরতায় ফেরাল ছে’লে ।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন ছে’লের কাহিনী দেখে কুর্নিশ করছেন নেটিজেনরা । কলকাতার বাসিন্দা তরুণ কান্তি পালের বয়স ৬৬ বছর । গত ১০ বছর ধরে একাই বাস করেন তিনি । একমাত্র ছে’লে সায়ন থাকে কানাডায় ।

স্ত্রী’ গত হয়েছেন বছর দশেক আগে । তারপর থেকেই একাকী’, নিঃসঙ্গ জীবন তরুণবাবুর । ভট্টনগরের গ্রামে আদি বাড়ি সায়নদের । বছর দুয়েক আগে অবসরগ্রহণের পর পর সেই গ্রামের রামকৃষ্ণ মঠে সকাল-বিকাল হাঁটতে যেতেন তরুণবাবু।

সেখানেই আলাপ স্ত্রী’ স্বপ্না রায় (৬৩)-এর সঙ্গে । একটু একটু করে পরিচিতি হয়, স’ম্পর্কের বাঁধুনি মজবুত হয়ে ওঠে । একে অ’পরের ফোন নম্বর নিয়ে শুরু হয় কথা বলা । একদিন দু’জনেই বুঝতে পারেন, একে অ’পরকে মন দিয়ে ফেলেছেন ।

কিন্তু ছে’লে’কে না জানিয়ে কোনও পদক্ষেপ নিতে চাননি তরুণবাবু । সব কথা জানার পর ছে’লে সায়নও সহমত হয় । নিজেই বাবার বিয়ের আয়োজন করেন ।

দুই হৃদয়কে মিলিয়ে দেওয়ার মধ্যে কোনও অন্যায় দেখেন না সায়ন । তাই চান, এ বার বাবাও একটু সুখের মুখ দেখু’ন । একজন প্রকৃত সঙ্গীর সঙ্গে কা’টান বাকি জীবনটা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *