সেই মণি-মুক্তা এখন ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী, কাল দুই বোনের জন্মদিন

মনে আছে সেই মণি-মুক্তার কথা?আজ থেকে ১১ বছর আগে জোড়া লাগানো অবস্থায় জন্ম নিয়েছিল এই দুই শি’শু।দেশের চিকিৎসাবিজ্ঞানের কল্যাণে দুই বোনকে আলাদা করা হয় অ’ত্যন্ত সফলতার সঙ্গে। সেই মুক্তা-মনির জন্ম’দিন রোববার (২২ আগস্ট)।

দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজে’লার আ’লোচিত যমজ দুই বোন মণি-মুক্তা এখন ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে।বীরগঞ্জ উপজে’লার শতগ্রাম ইউনিয়নের পালপাড়া গ্রামের জয় প্রকাশ পালের মে’য়ে মণি-মুক্তা।

মা-বাবার কোলে নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে মণি-মুক্তা এখন ঝাড়বাড়ী উচ্চবিদ্যালয়ের ছা’ত্রী। পরিবার জানায়, আগামীকাল রোববার সকালে নিজ বাড়িতে উৎযাপন করা হবে মণি-মুক্তার জন্ম’দিন।

প্রতিবছর শিক্ষক ও তাদের বন্ধুবান্ধবসহ প্রতিবেশী এবং গণমাধ্যমকর্মীদের উপস্থিতিতে কেক কে’টে জন্মবার্ষিকী’ উৎযাপন করা হলেও করো’না পরিস্থিতির কারণে গতবারের মতো ঘরোয়া পরিবেশে উৎযাপন করা হবে বলে জানান মণি-মুক্তার বাবা জয় প্রকাশ পাল।

দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়ে মণি-মুক্তা বলে, আম’রা চিকিৎসক হয়ে মানুষের সেবা করতে চাই। দেশবাসীর দোয়া এবং সহযোগিতা পেলে আম’রা অবশ্যই আমাদের স্বপ্ন পূরণ করতে পারব।

জয় প্রকাশ পাল ও কৃষ্ণা রানী পালের ঘরে ২০০৯ সালের ২২ আগস্ট পার্বতীপুর ল্যাম্ব হাসপাতা’লে অ’স্ত্রোপাচারের মাধ্যমে মণি ও মুক্তা জোড়া লাগা অবস্থায় জন্ম নেয়।

পরে রংপুরের চিকিৎসকরা তাদের মা-বাবাকে ঢাকা শি’শু হাসপাতা’লে নিয়ে অ’স্ত্রোপচারের পরাম’র্শ দেন।২০১০ সালের ৩০ জানুয়ারি ঢাকা শি’শু হাসপাতা’লে মণি-মুক্তাকে ভর্তি করা হয়।

৮ ফ্রেব্রুয়ারি ঢাকা শি’শু হাসপাতা’লের শি’শু বিশেষজ্ঞ ডা. এ আর খানের সফল অ’স্ত্রোপচারের মাধ্যমে মণি-মুক্তা ভিন্ন সত্তা ও ভিন্ন জীবন লাভ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *