Breaking News
Home / সারা দেশ / দল কখনো ধর্ম থেকে বড় নয়ঃ ছাত্রলীগ নেতা

দল কখনো ধর্ম থেকে বড় নয়ঃ ছাত্রলীগ নেতা

Advertisement

ভাস্কর্যের বি`রুদ্ধে ও আলেমদের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় রহিম দেওয়ানকে বহিস্কার করেছে ছাত্রলীগ। রহিম দেওয়ান মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলো। কিছুদিন ধরে দেশে চলমান ভাস্কর্য ইস্যুতে ইসলাম ও আলেম ওলামার পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় দল বহিস্কার হয় রহিম দেওয়ান।

Advertisement

সোমবার (৭ডিসেম্বর) প্রেস বিজ্ঞন্তিতে বাংলাবাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার অধীনস্থ বাংলাবাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগ শাখার এক জরুরী সিদ্ধান্তে মোতাবেক জানানো

যাচ্ছে যে,সংগঠনের নীতি আদর্শ ও শৃংখলা পরিপন্থী কার্য কালাপে জড়িত থাকায় মোঃ রহিম দেওয়ান (সাংগঠনিক সম্পাদক, বাংলাবাজার ইউনিয়ান ছাত্রলীগ শাখা) কে বাংলাবাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী বহিস্কার করা হলো।

রহিম দেওয়ান তার ব্যাক্তিগত ফেসবুক আইডিতে এই লিখিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির ছবি দিয়ে ক্যপশনেজানান, “বাংলার জিন্দা শাহজালাল অল্লামা মামুনুল হক সাহেব ও শীর্ষ নেতাদের পক্ষে কথা বলায় ছাত্রলীগ এর পক্ষ থেকে একটি মূল্যবান উপহার”।“বাচবো তো বাঘের মতো একদিন বাচবো তবুও ঈমানকে দলের কাছে বিক্রি করব না” “ধর্ম থেকে দল বড়

নয়, আলহমদুলিল্লাহ আপনাদের সিদ্ধান্ত সাদরে গ্রহণ করলাম” এদিকে রহিম দেওয়ান ইসলামের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় তার ফেসবুক টাইমলাইনে অনেকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছে। এমএসকে সৈকত লিখেন, রহিম দেওয়ান আমার বন্ধু। ভাস্কর্যের বি`রুদ্ধে , ইসলামের পক্ষে , মাওলানা মামুনুল হক সাহেবের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় ছাত্রলীগ হতে স্থায়ীভাবে বহিস্কার

করা হয়েছে।আল্লাহ তাকে কবুল করুক। কারন দল কখনো ধর্মের চেয়ে বড় হতে পারে নাহ।আব্দুল ওয়াজেদ লিখেন, মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার, বাংলা বাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক Dewan Rahim কে ভাস্কর্যের বিরুদ্ধে বলায় দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। নিম্নে তার প্রতিক্রিয়া।

ধর্ম থেকে দল বড় নয় আলহমদুলিল্লাহ আপনাদের সিদ্ধান্ত সাদরে গ্রহণ করলাম। জাযাকাল্লাহ প্রিয় ভাই। নাজমুল লিখেন, আলহামদুলিল্লাহ। দল না ঈমান প্রশ্নে; ঈমানকে বেছে নেয়ায় আরেকজন ছাত্রলীগের ভাইকে বহিষ্কার হতে হলো। সামান্য পদের লোভ ভুলে ঈমানকে দাম দেয়ায় আল্লাহ আপনাকে উত্তম প্রতিদান দিন।

নেয়ামত উল্লাহ কবির লিখন, প্রিয় ভাই Dewan Rahim ইসলামের পক্ষে কথা বলাতে যদি কোনো দলের নিয়মশৃঙ্খলা ভঙ্গ হয় এমন দল থেকে বহিস্কৃত হওয়াটাও আনন্দের। আল্লাহ তাআ’লা তোমাকে ইসলামের জন্য কবুল করুন। দোয়া ও শুভ কামনা চিরন্তন।

সাহিন সরকার লিখেন, ঈমান_সবার_আগেদিনকে দিন ঈমান আর কুফুরের শিবির আলাগ হচ্ছে, আপনি কোন শিবিরে? ইসলামের পক্ষ নিয়ে মূর্তির বিপক্ষে কথা বলায় এবার মুন্সিগঞ্জ বাংলাবাজারের ছাত্রলীগ নেতা Dewan Rahim কে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।মহান আল্লাহ, এই ভাইকে পরিপূর্ণ

ভাবে ইসলামের পথে কবুল করে নিন। সাকিব সাঈফী লিখেন, এসমস্ত_ভাইদের_বুকে_টেনে_নেওয়া_উচিৎ হে প্রিয় Dewan Rahim ভাই আল্লাহ আপনাকে কবুল করুক, আল্লাহ আপনাকে দ্বীনের উপর আজীবন অটল থাকার তৌফিক দান করুক। আল মামুন খান লিখেন, Dewan Rahim কে ইকামাতে দ্বীনের পথে স্বাগত জানাই! মূর্তির বিরুদ্ধে ও

আলেমদের পক্ষে বলায় তাকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।মূর্তি ইস্যুতে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কৃত তৃতীয় ব্যক্তি এই ভাইটি! তার একটি উক্তি, বাচবো তো বাঘের মতো একদিন বাচবো তবুও ঈমানকে দলের কাছে বিক্রি করব না। প্রসঙ্গ, এর আগেও ইসলাম ও আলেমদের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতা দল থেকে বহিস্কার হয়েছে।

ভাস্কর্যের বি`রুদ্ধে ও আলেমদের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় রহিম দেওয়ানকে বহিস্কার করেছে ছাত্রলীগ। রহিম দেওয়ান মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলো। কিছুদিন ধরে দেশে চলমান ভাস্কর্য ইস্যুতে ইসলাম ও আলেম ওলামার পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় দল বহিস্কার হয় রহিম দেওয়ান।

সোমবার (৭ডিসেম্বর) প্রেস বিজ্ঞন্তিতে বাংলাবাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলার অধীনস্থ বাংলাবাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগ শাখার এক জরুরী সিদ্ধান্তে মোতাবেক জানানো

যাচ্ছে যে,সংগঠনের নীতি আদর্শ ও শৃংখলা পরিপন্থী কার্য কালাপে জড়িত থাকায় মোঃ রহিম দেওয়ান (সাংগঠনিক সম্পাদক, বাংলাবাজার ইউনিয়ান ছাত্রলীগ শাখা) কে বাংলাবাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী বহিস্কার করা হলো।

রহিম দেওয়ান তার ব্যাক্তিগত ফেসবুক আইডিতে এই লিখিত প্রেস বিজ্ঞপ্তির ছবি দিয়ে ক্যপশনেজানান, “বাংলার জিন্দা শাহজালাল অল্লামা মামুনুল হক সাহেব ও শীর্ষ নেতাদের পক্ষে কথা বলায় ছাত্রলীগ এর পক্ষ থেকে একটি মূল্যবান উপহার”।“বাচবো তো বাঘের মতো একদিন বাচবো তবুও ঈমানকে দলের কাছে বিক্রি করব না” “ধর্ম থেকে দল বড়

নয়, আলহমদুলিল্লাহ আপনাদের সিদ্ধান্ত সাদরে গ্রহণ করলাম” এদিকে রহিম দেওয়ান ইসলামের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় তার ফেসবুক টাইমলাইনে অনেকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছে। এমএসকে সৈকত লিখেন, রহিম দেওয়ান আমার বন্ধু। ভাস্কর্যের বি`রুদ্ধে , ইসলামের পক্ষে , মাওলানা মামুনুল হক সাহেবের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় ছাত্রলীগ হতে স্থায়ীভাবে বহিস্কার

করা হয়েছে।আল্লাহ তাকে কবুল করুক। কারন দল কখনো ধর্মের চেয়ে বড় হতে পারে নাহ।আব্দুল ওয়াজেদ লিখেন, মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার, বাংলা বাজার ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক Dewan Rahim কে ভাস্কর্যের বিরুদ্ধে বলায় দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। নিম্নে তার প্রতিক্রিয়া। ধর্ম থেকে দল বড় নয় আলহমদুলিল্লাহ আপনাদের সিদ্ধান্ত সাদরে গ্রহণ করলাম। জাযাকাল্লাহ প্রিয় ভাই। নাজমুল লিখেন, আলহামদুলিল্লাহ। দল না ঈমান প্রশ্নে; ঈমানকে বেছে

নেয়ায় আরেকজন ছাত্রলীগের ভাইকে বহিষ্কার হতে হলো। সামান্য পদের লোভ ভুলে ঈমানকে দাম দেয়ায় আল্লাহ আপনাকে উত্তম প্রতিদান দিন।নেয়ামত উল্লাহ কবির লিখন, প্রিয় ভাই Dewan Rahim ইসলামের পক্ষে কথা বলাতে যদি কোনো দলের নিয়মশৃঙ্খলা ভঙ্গ হয় এমন দল থেকে বহিস্কৃত হওয়াটাও আনন্দের। আল্লাহ তাআ’লা তোমাকে ইসলামের

জন্য কবুল করুন। দোয়া ও শুভ কামনা চিরন্তন।সাহিন সরকার লিখেন, ঈমান_সবার_আগেদিনকে দিন ঈমান আর কুফুরের শিবির আলাগ হচ্ছে, আপনি কোন শিবিরে? ইসলামের পক্ষ নিয়ে মূর্তির বিপক্ষে কথা বলায় এবার মুন্সিগঞ্জ বাংলাবাজারের ছাত্রলীগ নেতা Dewan Rahim কে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।মহান আল্লাহ, এই ভাইকে পরিপূর্ণ

ভাবে ইসলামের পথে কবুল করে নিন। সাকিব সাঈফী লিখেন, এসমস্ত_ভাইদের_বুকে_টেনে_নেওয়া_উচিৎ হে প্রিয় Dewan Rahim ভাই আল্লাহ আপনাকে কবুল করুক, আল্লাহ আপনাকে দ্বীনের উপর আজীবন অটল থাকার তৌফিক দান করুক। আল মামুন খান লিখেন, Dewan Rahim কে ইকামাতে দ্বীনের পথে স্বাগত জানাই! মূর্তির বিরুদ্ধে ও

আলেমদের পক্ষে বলায় তাকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।মূর্তি ইস্যুতে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কৃত তৃতীয় ব্যক্তি এই ভাইটি! তার একটি উক্তি, বাচবো তো বাঘের মতো একদিন বাচবো তবুও ঈমানকে দলের কাছে বিক্রি করব না। প্রসঙ্গ, এর আগেও ইসলাম ও আলেমদের পক্ষে অবস্থান নেওয়ায় কয়েকজন ছাত্রলীগ নেতা দল থেকে বহিস্কার হয়েছে।

Advertisement

Check Also

১৪ এপ্রিল থেকে সর্বাত্মক ‘লকডাউন’

Advertisement করোনাভাইরাস পরিস্থিতি বেড়ে যাওয়ায় সারা দেশে আগামী ১৪ এপ্রিল থেকে এক সপ্তাহের জন্য সর্বাত্মক …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *