যে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন বেগম খালেদা জিয়া!

বেগম খালেদা জিয়া গত মার্চ মাসে বিশেষ বিবেচনায় জা’মিন পেয়েছেন। জা’মিন পাওয়ার পর তিনি তার গুলশানের বাসভবন ফিরোজায় আছেন।সেখান থেকে তার একটা ব্যক্তিগত চি’কি’ৎসক দল তার স্বাস্থ্য

পরীক্ষা করছে এবং নিয়মিত তার সুচি’কিৎসা করার ব্যবস্থা করছে। এদিকে লন্ডন থেকে তারেক রহমানের স্ত্রী যুবাইদা রহমান তার চিকি’ৎসার ব্যাপারে সার্বিক খোঁ’জখবর নিচ্ছেন। দ্বিতীয় মেয়াদে জা’মিন পাওয়ার পর

খালেদা জিয়ার বিদেশে যাওয়ার কথা ছিল এবং এজন্য বেগম জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয়েছিল। কিন্তু সারাবিশ্বে কো’ভি’ড-১৯ পরি’স্থিতির কারনে এবং তারেক জিয়ার অ’নাগ্র’হের কারণে শেষ পর্যন্ত খালেদা জিয়া আপা’তত বিদেশ যাচ্ছেন না।

বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে যে, যেহেতু বেগম খালেদা জিয়ার এখানে যেসব দেশে যেতে চান উন্নত চিকি’ৎসার জন্য সেই দেশগুলোর ক’রো’না পরিস্থিতি অ’ত্য’ন্ত খা’রা’প হওয়ার কারণে এখন বেগম খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎ’সার জন্য বিদেশে নিয়ে যাওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

এই বাস্তবতায় বেগম খালেদা জিয়ার কিছু পরী’ক্ষা এবং কিছু দীর্ঘমেয়াদি চি’কি’ৎসার জন্য তাকে হা’স’পাতা’লে ভর্তি করার কথা ভাবা হচ্ছে। বেগম খালেদা জিয়া কোন হাস’পা’তালে ভ’র্তি হতে পারেন সেটি নিয়ে খালেদা জিয়া চিকি’ৎস’করা কাজ করছেন।

ইতিমধ্যে খালেদা জিয়ার চি’কি’ৎসক টিমের সদস্যরা রাজধানীর দুটি হাস’পা’তাল পরিদর্শন করেছেন। একটি হলো ই’উনাই’টেড হা’সপা’তাল এবং অন্যটি হলো এভা’রকে’য়ার হাস’পাতা’ল (সাবেক এপো’লো হা’সপাতাল)। জানা গেছে যে,

বেগম খালেদা জিয়ার ডায়া’বেটিস নি’য়ন্ত্রণ করা সহ কিছু চিকিৎ’সার জন্য তাকে হাস’পা’তালে রাখতে হবে। খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎ’সক জানিয়েছেন যে, ১০ থেকে ১৫ দিন পর্যন্ত তাঁকে হাস’পাতা’লে রেখে কিছু ই’নজে’কশন এবং পরী’ক্ষা-নি’রীক্ষা করা প্রয়োজন হতে পারে।

এই পরী’ক্ষা-নি’রীক্ষা এবং চিকি’ৎসা তারা লন্ড’নে করতে চেয়েছিলেন এবং দ্বিতীয় বিবেচনায় সৌদি আরবেও করার কথা ছিল। কিন্তু এখন বর্তমান পরিস্থিতিতে বেগম খালেদা জিয়া বিদেশে যেতে আ’গ্রহী নয়। এ কারণেই তার ব্যক্তিগত চি’কিৎস’করা মনে করছেন যে দেশের একটি হাস’পা’তালে তার চি’কিৎ’সা করা দরকার।

আজ ( ১৩ ডিসেম্বর ) বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎ’সকরা ইউনাইটেড হা’সপা’তালে খালেদা জিয়া যে ধরনের পরী’ক্ষা’গুলো করাবেন সেই ধরণের পরীক্ষাগুলোর সুযোগ সুবিধা’গুলো কত’টুকু আছে, কিভাবে আছে এবং খালেদা জিয়াকে যদি হাস’পা’তালে রাখা হয় তাহলে কিভাবে রাখা হবে সেই ব্যাপারে হাস’পাতা’লে ব্যবস্থাপকদের সাথে কথা বলেছেন।

একইভাবে তারা এভার’কেয়ার হাস’পা’তালের (সাবেক এপোলো হাস’পা’তাল) সাথেও কথা বলে রেখেছেন। বেগম খালেদা জিয়ার চিকি’ৎসার জন্য তারা যে হা’সপা’তাল তারা নি’রাপ’দ মনে করবেন সেই হাসপাতালে তার চিকিৎসা করানোর চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে। বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসকদের থেকে জানা গেছে, তার এখন প্রধানত তিনটি সমস্যা।

প্রথমত, অনি’য়ন্ত্রিত ডা’য়াবেটি’স সু’গার ১৬ উপর থাকছে। দ্বিতী’য়ত, তার পায়ের ব্য’থা অনু’ভূ’তি বলেছেন চ’লা’ফেরা করতে পারছেন না। তৃ’তীয়ত, বেগম খালে’দা জিয়ার স্মৃ’তিশক্তি’ লোপ পাওয়ার প্র’বণ’তা দেখা যাচ্ছে। আর এই জন্য কিছু পরীক্ষা দরকার যে পরী’ক্ষাগু’লো হা’সপা’তা’লে রেখে করতে হবে। তবে শেষ পর্যন্ত বেগম খালেদা জিয়া কোন হাস’পাতা’লে ভর্তি হবেন সেটা নি’র্ভর করছে বে’গম খালেদা জি’য়ার মনো’ভাব এবং তার পরি’বারে’র সিদ্ধা’ন্তের উপর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *