সইফের উপরে রাগ হলে খাঁটি বাংলায় ঝগড়া করেন শর্মিলা! ফাঁস করলেন কন্যা সোহা

রবি ঠাকুরের বাড়ির মেয়ে বলে কথা! যতই পটৌডিদের নবাব বংশের বউ হোন আর স্থায়ী বসবাস হোক হিন্দিভাষী মুলুকে, বাংলা কি তাঁর জীবন থেকে সহজে হারাতে পারে? মোটেই না!

আর তাই আজও রেগে গেলে মাতৃভাষাকেই হাতিয়ার করেন এই নামী অভিনেত্রী। তিনি, শর্মিলা ঠাকুর। সত্যজিৎ রায়ের ‘দেবী’র অন্দর মহল থেকে এই তথ্য ফাঁস করেছেন তাঁরই কন্যা,

অভিনেত্রী সোহা আলি খান। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সোহা জানিয়েছেন, ছেলে সইফের সঙ্গে ঝগড়া বাধলেই শর্মিলা নিমেষে বাঙালি মা! রাগ থেকে অভিমানের সব হিসেবনিকেশ মেটান খাঁটি বাংলায়!

সোহার কথায়, “কে বলে বাংলা মিষ্টি ভাষা! আমাদের কাছে কিন্তু খুবই ভয়ের ভাষা। বাংলায় কথা বলছে মানেই মা রেগে কাঁই! দাদা সইফের সঙ্গে বাংলায় তুমুল ঝগড়া হবে তার পর।

আর মিটমাট করাতে আসরে নামতে হবে আমাকে! দু’জনেই যে আমায় ফোন করে সবটা আমায় বলবে!” পটৌডি বংশের নবাব, ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক মনসুর আলি খান পটৌডিকে বিয়ে করে পাকাপাকি ভাবে

মুম্বইয়ের বাসিন্দা হন ঠাকুরবাড়ির বংশধর শর্মিলা। সত্যজিতের ‘অপুর সংসার’, ‘দেবী’, ‘নায়ক’, ‘অরণ্যের দিনরাত্রি’র মতো একাধিক বাংলা ছবির নায়িকা তার পর বলিউডেও অজস্র ছবিতে দাপটে অভিনয় করেছেন।

যাঁর নিষ্পাপ সৌন্দর্যে, বাঙালি টানে হিন্দি উচ্চারণের সংলাপে আজও বুঁদ দর্শক। হিন্দি ছবির জনপ্রিয় নায়িকা এখনও যে মনেপ্রাণে বাঙালি, ফাঁস করে দিলেন মেয়ে সোহা-ই!

Leave a Reply

Your email address will not be published.