যে কারণে ‘কাঁচাবাদাম’ বিক্রি ছাড়লেন ভুবন

বাদাম বাদাম দাদা, কাঁচাবাদাম, আমার কাছে নাই গো বুবু ভাজা বাদাম…’ এমনই কথায় ভুবন বাদ্যকরের গাওয়া গানটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ায় সেলিব্রেটি বনে গেছেন তিনি।

একসময় ভারতের ঝাড়খন্ড, বর্ধমান, ভীরভূমে ঘুরে ঘুরে বাদাম বিক্রি করতেন ভুবন। গানের সুরে বিক্রি করতেন কাচাবাদাম। কিন্তু তার গাওয়া গান ভাইরাল হওয়ার পর এখন সেটি প্রায় বন্ধ।

তাকে দেখলেই গান শোনানোর বায়না ধরে সবাই। এবার পুরনো পেশা ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ভুবন বাদ্যকর। বাদাম বিক্রি ছেড়ে সম্পূর্ণভাবে সংগীতে ডুবে যেতে চান তিনি।

জানা গেছে, গোধূলিবেলা মিউজিক কোম্পানি নামের যে প্রতিষ্ঠান প্রথম তার গান প্রকাশ করেছিল, তারাই এবার ভুবনের সঙ্গে তিন লাখ রুপির চুক্তি করেছে। এরপরই এ ঘোষণা দিয়েছেন তিনি।

এদিকে ভুবনের ‘কাঁচাবাদাম’ গানটি ভাইরাল হওয়ার পর অনেকেই নিজের মতো করে সেই গানের আলাদা আলাদা সংস্করণ বের করছেন। বৃহস্পতিবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বীরভূমের ইলামবাজারে গোধূলিবেলা মিউজিক কোম্পানির

অফিসে ভুবনের সঙ্গে কপিরাইট চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। এখন থেকে ভুবনের ওই গান ব্যবহার করার আগে প্রত্যেককে তাদের অনুমতি নিতে হবে।

গোধূলিবেলার মালিক গোপাল ঘোষ জানিয়েছেন, ভুবনের গান প্রকাশ করলেও কপিরাইটের বিষয়টি সম্পর্কে তেমন ওয়াকিবহাল ছিলেন না তারা। তাই যে যেমন পেরেছেন, ভুবনের গান ব্যবহার করেছেন।

তবে এখন বিষয়টি বুঝতে শুরু করেছেন। তাই গান চুরি রুখতে আগামী দিনে কঠোর পদক্ষেপ নেবেন তারা। প্রসঙ্গত, ভুবন বাদ্যকর বাদাম বিক্রি করতেন। ভাজা বাদাম নয়, কাঁচাবাদাম। ভাজা বাদামের অপকারিতা আর কাঁচাবাদামের উপকারিতা নিয়ে একটি গান বেঁধেছেন তিনি।

এই গানের কথা যুক্ত হয়েছে টাকা ছাড়াও কীসের বিনিময়ে বাদাম বিক্রি করেন, যেমন ভাঙা মোবাইল, সিটি গোল্ডের পুরনো জিনিস, মাথার চুল ইত্যাদি। গানের কথায় এসব বিষয় আর অদ্ভুত সুর তরুণরা ইন্টারনেটে পাওয়া মাত্রই লুফে নেয়।
সূত্র: এবিপি আনন্দ

Leave a Reply

Your email address will not be published.