আবদুল কাদেরের স্মৃ’তিচারণে ‘রং নাম্বার’ সিনেমার নায়িকা শ্রাবন্তী

Sabbir Rahman 0

জনপ্রিয় অ’ভি’নেতা আ’ল কা’দের আর নেই। আজ শনিবার (২৬ ডিসেম্বর) সকাল ৮টা ২০ মিনি’টে প্যা’ন’ক্রিয়া’সের (অ;গ্ন্যাশয়) ক্যা;ন্সারে ভু;গে মা;’রা গে’ছেন দে’শের নন্দি’ত অ’ভিনেতা আবদু’ল কা’দের। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজিউন।

এই অ’ভিনেতার মৃ’;ত্যু;তে শোকের ছায়া নেমে এসেছে শোবি;জে। শো;ক প্র;কাশ করেছেন প্রধান;মন্ত্রী শেখ হাসিনাও। দীর্ঘ;দি;নের সহকর্মী আবদুল কাদেরের মৃ’;ত্যু;র বেদনা ছুঁয়ে গেছে অ’ভি;ত্রী শ্রাবন্তীকেও।

কাদে;রকে তিনি মামা বলে ডা;কতেন। সেই কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘পুরো বছর;জু;ড়েই প্রিয়জনদের মৃ’;ত্যু;র খবর শুনতে হলো। কিছুদিন আগে আমা’র মা চলে গেলেন। আজ কা;দের মামা। আমি উ;কে মামা বলে ডাক;তাম।

আমা’র অ’ভিভাক ছিলেন। ১২ বছর ধরে অ’ভিনয়ে নেই। অনে;কের সঙ্গেই যোগা;যোগ বন্ধ। কিন্তু কাদের মামা যোগা;যোগ রাখতেন। অ’ভি;ভাব;কের মতো খোঁজ নি;তেন। তার কাছে সবসময়ই আদর-স্নেহ পেয়েছি।

মামা ও মামী দুজনেই আমা;কে খুব আদর করে;ছেন সবসময়। তার মৃ’;ত্যু;টা মেনে নিতে ক’ষ্ট হচ্ছে। অ’ভি;ভাবক হারিয়ে ফেলা;র বেদনা দিচ্ছে।’ সহক;র্মী হিসেবে আ;বদুল কাদে;রকে নিয়ে নিজের অ’ভি;জ্ঞতার কথা জানিয়ে শ্রাবন্তী বলেন, ‘মামা কোনো কাজ হাতে নিলে আমাকে কল দিয়ে জানতে চাইতেন আমি কাজটি করছি কি না।

যদি এমন হতো দু;জনই একটি নাট’কে কাজ করছি তবে উনি খুব খুশি হতেন। মামা কখনো শুটিং ইউনিটে;র খাবার খেতেন না। বাসা থেকে নিয়ে আস;তেন। যখনই আমি সেটে থাকতাম, ‘এই মে’য়ে এদিকে আয়, ভাত খাবো।’ এই যে স্নেহটা, কো;নোদিন ভুল;বার নয়।’

আ;বদুল কাদের ক্যারি;য়ারে বহু নাট’ক-অনুষ্ঠানে কাজ করলেও খোঁজ পাওয়া যায় তিনি একটি মাত্র সিনেমায় অ’ভিনয় করেছেন। ‘রং নাম্বার’ নামের সেই সিনেমা;য় নায়িকা ছিলেন শ্রাবন্তী। সেখানে কাজের অ’ভিজ্ঞতা কেমন ছিলো জানতে চাইলে ‘জো;ছনার ফুল’খ্যাত অভ;নেত্রী বলেন, ‘এটা দারুণ ব্যাপা;র অবশ্যই। সিনে;মায় কাজ করতে গিয়ে অনেক অ’ভিজ্ঞতাই হয়েছে। আসলে এই মুহু;র্তে সব এ;লো;মেলো লাগছে।

মা;মা’র সঙ্গে কা;জের অ’ভিজ্ঞতা সবসময়ই দারুণ ছিলো। তিনি ছিলেন অনুপ্রেরণার মানুষ। সবসময় নিজের চরিত্রটি ফু;টিয়ে তোলার জন্য জা;নপ্রা’ণ দিয়ে চেষ্টা করতেন। সেটের লোক;দের সঙ্গে ডিসকাস করতেন ঠিকমতো চরিত্রটি ফুটি;য়ে তু;লতে পারছেন কি না। আরও কি কি করা যেতে পারে এইসব। প্রা’ণব;ন্ত ছিলেন। মন;যোগী একজন অ’ভিনেতা।’

ব্যক্তি আবদুল কাদের স’ম্পর্কে শ্রা;বন্তী বলেন, ‘পর্দায় আম’রা যে আবদুল কাদেরকে দেখতাম, সব;সময় হাসাচ্ছেন, দুষ্টুমির সংলাপ দিচ্ছেন; বাস্তব মানু;ষটা এরকম ছিলেনই না। নিপাট ভদ্র;লোক। পরিপাটি, শৃঙ্খ;লাবদ্ধ মানুষ। কদিন আগেও দেখছিলাম কাদের মা;মা’র মৃ’;ত্যু;র ফেক নিউজ। আজও ভাব;ছিলা;ম যেন সব ফেক হয়। কিন্তু আজকের খবরটা খুবই নিষ্ঠুর। কা;রোরই ক;রার কিছু নেই। দোয়া করি কাদের মা;মাকে যেন আল্লাহ বেহেস্ত দান করেন।’

এদিকে অ’ভিনে;তার পুত্রব;ধূ জাহিদা ইস’লাম জেমি নিশ্চিত করেছেন, আজ শ;নিবার মাগরিব নামাজের পর রাজধানীর ব;নানীতে সমাহি;ত করা হবে তাকে। তার আগে রাজধানীর সেগুন;বাগিচার শি;ল্পকলা একা;ডেমি প্রাঙ্গণে ম;’রদে;হ নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে সর্ব;স্তরের মানুষ শেষ শ্রদ্ধা জা;নাবেন আবদুল কাদেরকে।

‘কোথাও কেউ নেই’ নাট’কের চরিত্র ‘বদি’ খ্যাত আবদু;ল কাদেরের জন্ম মুন্সীগঞ্জ জে’লার ট;ঙ্গীবাড়ী থা’নার সোনারং গ্রামে। তার বাবা ম’রহু’ম আবদুল জলিল। মা ম’রহু’মা আনোয়ারা খাতুন। স্ত্রী’ খাইরু;ননেছা কাদেরের সঙ্গে সুখের দাম্প;ত্যে তিনি এক ছে’লে ও এক মেয়ের জ;নক। রেখে গেছেন অসংখ্য গুণগ্রা;হী ও বন্ধু স্বজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *