বিয়ের মাত্র ৪ মাস, স্বামীর কথায় কেঁদে ফেললেন নেহা

‘পলট পলট পলট!’ নায়কের মনের কথা শুনে নায়িকা ফিরে তাকাল। তারপরেই শুরু হয়েছিল প্রেমের গল্প। নেহা কক্কর এবং রোহনপ্রীত সিং-এর ভালবাসার শুরুটাও কিছুটা একইভাবে।

সেই রূপকথার গল্পই তারা শেয়ার করলেন ‘ইন্ডিয়ান আইডল’-এর মঞ্চে। আর ৫টা দিনের মতোই দিন শুরু করেছিলেন রোহন। এরপর একটা ফোন ঘুরিয়ে দিল জীবনের মোড়।

নস্টালজিয়া রোহনের গলায়, আমি আমার পাগড়ি বাঁধছিলাম। তখন আমি চণ্ডীগড়ে। ওর(নেহার) ম্যানেজমেন্টথেকে তখন ফোন আসে। জানতে চাওয়া হয় নেহার একটি ভিডিওতে আমি ওর সঙ্গে কাজ করব কি না।

রোহনের কাছে নেহা তখন শুধুই একজন তারকা। এই মুহূর্তে বলিউডের প্রথম সারির গায়িকা। তার সঙ্গে কাজের সুযোগ হাতছাড়া করতে চাননি রোহন। এক কথায় রাজি হয়ে যান পঞ্জাব ইন্ডাস্ট্রির উঠতি গায়ক।

এরপরেই সেই বিশেষ মুহূর্ত। ‘নেহু’-র সঙ্গে ‘রোহু’-র প্রথম দেখা। সেই দিনটার কথা মনে করে রোহন বললেন, আমার মনে আছে আমি যখন ঘরে ঢুকেছিলাম, নেহা সেখানেই বসেছিল। সেই মুহূর্তটা আমার জীবন বদলে দিয়েছিল।

নেহাকে ‘বিধাতার প্রিয় সন্তান’, আখ্যা দিয়েছেন রোহনপ্রীত। তিনি মনে করেন, গানের সঙ্গেই নেহা রোহনেরও ভাগ্য লিখেছিলেন। তার প্রতি রোহনের ভালবাসা দেখে আবেগে ভেসেছেন নেহাও।

চোখের কোণে জল চিকচিক করছিল তার। রাখঢাক না করেই সকলের সামনে জড়িয়ে ধরলেন রোহনকে। নবদম্পতির ভালবাসা দেখে আপ্লুত উপস্থিত সকলেই।

এরপর সেই এপিসোডটির প্রোমো নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে শেয়ার করে নেহা লিখেছেন, ও আমাকে কাঁদিয়েছে। আমি সৌভাগ্যবতী। বিধাতা রোহনপ্রীতের মঙ্গল করুন। ওর মত ভাল মানুষ দেখাযায় না।প্রায় ৪ মাস হল বিয়ে সেরেছেন তারা। সময় যত বাড়ছে, ভালবাসার রং গাঢ় হচ্ছে তাদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *