Breaking News
Home / রাজনীতি / যে কৌশলে ক্ষমতায় আছে আওয়ামী লীগ

যে কৌশলে ক্ষমতায় আছে আওয়ামী লীগ

Advertisement

টানা ১২ বছর ক্ষ’মতা’য় আছে আওয়ামী লীগ। বাংলাদেশতো বটে’ই উপমহাদেশে এবং বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটে এটি একটি বি’রল ঘ’টনা। গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় একটি দল দুই মেয়াদে ক্ষ’ম’তায় থা’কলেই মানুষ পরি’ব’র্তনের

দিকে ঝু’কে, পরি’বর্ত’ন চায়। তাই গণ’তান্ত্রিক ব্য’ব’স্থায় ভালো কাজ করেও ক্ষ’মতা’য় থাকা এবং জনপ্রিয়তা ধরে রাখা ক’ঠি’ন। কিন্তু এই ক”ঠিন কাজটিই সহজ ভাবে করেছে আওয়ামী লীগ। কিভাবে এক যুগ ক্ষ’মতায়

টিকে আছে? টানা ক্ষম’তায় থেকেও জনপ্রিয় থাকার কৌ’শ’লই বা কি? রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, আওয়ামী লীগের ক্ষমতায় থাকার কৌশল ৫টি। এগুলো হলো: ১. জনগণকে উন্নয়নের ধারায় সম্পৃক্ত করা: ২০০৮ এর নির্বাচন আওয়ামী লীগের জন্য ছিলো টার্নিং পয়েন্ট।

ঐ নির্বাচনের ইশতেহারে আওয়ামী লীগ সময় নিঘন্ট (টাইম বাউন্ড) উন্নয়ন কর্মসূচী ঘোষণা করে। ডিজিটাল বাংলাদেশের একটি রূপ পরিকল্পনা ঘোষণা করে। ক্ষমতায় এসে একটি সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য অনুযায়ী উন্নয়ন কর্মসূচী বাস্তবায়ন শুরু করে।

সবচেয়ে বড় কথা হলো, এই উন্নয়ন কর্মসূচীতে জনগনকে স’ম্পৃক্ত করে। ফলে ব্যক্তিগত জীবনে মানুষের মধ্যে যেমন উন্নত এবং স্বাচ্ছন্দ্য জীবনের আকাংখা তৈরি হয়, তেমনি সামাজিক ভাবে সমাজে একটি উন্নয়ন চেতনা সৃষ্টি হয়।

এরফলে কর্মজাগরণের একটি আবহ তৈরি করতে সক্ষম হয় আওয়ামী লীগ। এতে করে, জনগন জালাও পোড়াও হর’তালের রাজনীতিকে বর্জন শুরু করে। ফলে, সরকার বি’রো’ধি আ’ন্দোল’ন অস’ম্ভব হয়ে পরেছে এখন।

২. প্রশাসনের সঙ্গে সম্পর্ক: ২০০৯ সাল থেকেই আওয়ামী লীগ সরকার প্রশাসনকে নি’বিড় পরিচ’র্যা’য় রাখে। পে স্কেল দিয়ে বেতন স্কে’ল বাড়ানো নিয়’মিত নি’য়োগ ও পদোন্ন’তির ধারা চালু করে। ফলে, প্রশাসন এই সরকারের উপর আ’স্থা”শীল হয়ে ওঠে।

সরকা’রের বি’রু’দ্ধে প্রকাশ্য বা গো’পন গ্রু’পিং কমে যায়। প্রশাসনে পদোন্ন’তি এবং ভালো পো’ষ্টিং পেতে সরকারের ঘ’নিষ্ঠ হবার প্রতিযোগিতা শুরু হয়।

৩. সে’নাবাহি’নীতে পে’শাদারিত্ব: বাংলাদেশে বিভিন্ন সময়ে উ’চ্চাভি’লাষী কিছু সে’নাক’র্মকর্তা রাষ্ট্র ক্ষমতা দখ’লের ঘ’টনা ঘ’টায়। ৭৫ থেকে ৮২ পর্যন্ত সেনা অভ্যু’ত্থান ছিলো নিয়মিত বাস্তবতা।

এমনকি ২০০৭ সালে ড: ফখরুদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে তত্বাধায়ক সর’কারের পেছনেও সে’নাবা’হিনীর একটি অংশের সমর্থন ছিলো। আওয়ামী লীগ পদোন্নতি, প্রশিক্ষণ, দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সেনাবাহিনীতে শৃংখলা ফিরিয়ে আনা এবং পেশাদারিত্বের উপর জোর দেয়া।

ফলে গত এক দেশকে সেনাবাহিনী রাজনীতি বিযু’ক্ত হয়ে একটি পেশাদার বাহিনী হিসেবে গড়ে উঠেছে। রাজনীতিতে সে’নাবাহনীর হ’স্তক্ষে’প না করার ফলে ষ’ড়য’ন্ত্র বা অন্য পন্থায় আওয়ামীলীগকে সরানো কঠিন হয়ে পরেছে।

৪. বি’রো’ধি দলকে নিয়ন্ত্রনে রাখার কৌ’শল: গত ১২ বছরে দেশের বি’রোধি’ দল’গুলোর লাগাম সরকারের হাতেই ছিলো। বড় ধরনের সরকার বি’রো’ধি আন্দো’লন হতে পারেনি। বি’রো’ধি রাজনীতির বদলে আওয়ামী লীগ ঐক্যমতের রাজনীতিকে বি’কষি’ত করে। তাছাড়া যু”দ্ধাপরা’ধীদের বিচারের ইস্যু আওয়ামী লীগকে বাড়তি সুবিধা দেয়।

৫. দলের শু’দ্ধি অ’ভি’যান: টানা ক্ষমতায় থেকেও আওয়ামী লীগ দ’লে দানব তৈরী হতে দেয়নি। নানা অনিয়মের অভি’যোগে অনেক নেতা-কর্মীর বি’রু’দ্ধে কঠোর অবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ফলে আ’ওয়ামী লীগ পশ্চিম বঙ্গের বা’মফ্র’ন্টের মতো সরকারের চেয়েও বড় হয়’নি। মূলত: এই পাচ কৌশলেই আওয়ামী লীগ বড় ধরনের চা’প ছা’ড়াই ক্ষম’তায় টিকে আছে।

Advertisement

Check Also

হেফাজতের ভাঙ্গন প্রক্রিয়া চূড়ান্ত: মামুনুল-বাবুনগরীর বিদায়!

Advertisement সাম্প্রতি সময়ের কর্মকাণ্ডের জন্য হেফাজতকে কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে পরতে হয়েছে। সারাদেশে নাশকতা ও নৈরাজ্য …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *