দিহান ও তার ব’ন্ধুদের থা’;নায় বসে বিরি;য়ানি খাও;য়ানো হয়েছে: আনুশকার মা

ফার;দি;নের মধ্যে কো;নো অনু;শো;চনা বা ভ;’য়-ভী;তি ছিল না। তা;দের চার ব;ন্ধুকে থা’;নায় বসে বিরি;য়ানি খাও;য়ানো হ;য়েছে। তাদের কোনো ও;ষুধ লাগ;বে কি-না জানতে চাওয়া হয় তখন।

এ সময় তাদের ই;চ্ছানু;যায়ী মা;ম;লা সাজা;নো হয়। তখন আ;মা’র স্বা;মী মে;য়ের শো;কে বার;বার চেতনা হা;রিয়ে ফে;ল;ছিলেন। আমি মা;ম;লার বা;দী হতে চেয়েছিলাম। কি;ন্তু দে;য়নি।

আমি একটু শক্ত সা;;ম’র্থ্য হও;য়াতে আ;মাকে কোনো কথা ব;লার সুযো;গ দেয়নি। মা;ম;লায় কি লেখা হ;য়েছে সেটা পড়া;র ম;তো হুঁ;শ ছিল না। তখন আনু;শকার বাবার কাছ থেকে স্বা;ক্ষর নিয়ে নেয়।

ফার;দিন স্বী;কা;রো;ক্তির নামে যে মি;থ্যা;চার করছে- এটা কো;নো ভা;বেই স;ঠিক নয়। ইতি;মধ্যে জে;নেছি, ফা;র;দিনের সঙ্গে থাকা তি;ন বন্ধু”ই প্রভাব”শা;লী পরি;বা”রের। তারা সং;শ্লিষ্ট থা”না”কে ম্যা”নেজ ক;রার চেষ্টা করেছে। ফার;দিন তো বাঁ”চা”রই চে”ষ্টা করবে।

এত বড় ;জঘ;ন্য কাজ যে করতে পারে তার পক্ষে এই মি;থ্যা;চার করা অ;স;ম্ভব কিছু নয়। এখন প্রধানমন্ত্রীর কাছে আমা’র একটিই আ;বে;দন, এত জ;ঘ;ন্যতম কাজ, অ;মান;বিক নি;র্যা;ত;ন করে একটি নি;ষ্পা;প কি’;শো;রীকে হ;ত্যা;য় অ’ভি;যু’ক্ত ফার;দি;নের দ্রু;ত;তম সম;য়ের মধ্যে ক;ঠিনত;ম বিচার দাবি করছি।

ভবিষ্যতে এরকম অন্যা;য় যেন আর কেউ কর;তে সা;হস না পায় সু;ষ্ঠু বিচা;রের মাধ্য;মে সেই দৃ;ষ্টা;ন্ত স্থা;পন ক;রার দাবি জা;নাচ্ছি। এই ঘট;নার স;ঙ্গে অন্য যারা জ;ড়িত তা;দের সকলের শা;স্তি দাবি করছি।

তিনি বলেন, কারণ এক;জনে;র স;ঙ্গে প্রে’;মের স’;ম্পর্ক থা;কলে একটি মে’য়ের প্রা’ণ এ;ভাবে যাও’য়ার কথা নয়। বাকি তি;নজ;ন খা’রা;প ছে’লে;টারই (ফার;;দিন) বন্ধু। এ বিষয়ে আ;ম’রা প্রশা;সনের পক্ষ থেকে কো;নো ধর;নে;র স;হযো;গিতা পা;চ্ছি না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *