যে কারণে হাসিনা-মোদীর ছবি নিয়ে মি’ছিল পাকিস্তানে

পাকিস্তানের সিন্ধ প্রদেশের স্বা’ধীনতার দাবিতে মি’ছিলে দেখা গেল ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাস থেকে শুরু করে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনায়কদের ছবি সম্বলিত প্ল্যাকার্ড।

এই মি’ছিল থেকে পাকিস্তানের স্বাধীন’তার জন্য ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও শেখ হাসিনাসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের শা’সক’দের হ’স্তক্ষে’পের দা’বি উ’ঠল।

প্র’তিবা’দীরা দাবি করেছেন, পাকিস্তানের সি’ন্ধ প্রদেশ প্রাচীন কালে সিন্ধু উপত্যকার অংশ ছিল। ব্রিটিশ সরকার সেই উপত্যকা দখল করে। তারপর ১৯৪৭ সালে দেশভাগের সময় তা পাকি’স্তানের হাতে তুলে দেয়।

প্র’তিবা’দী সংগঠনগুলির একটি জেয় লিন্ধ মুত্তাহিদা মহজ-এর চেয়ারম্যান মহম্মদ বুরফট জানিয়েছেন, এতদিন ধরে সংস্কৃ’তি ও ইতিহাসের উপর প্র’বল অ’ত্যাচা’র চলার পরেও, সিন্ধ প্রদেশ তার ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক পরিচয় সমান ভাবে বজায় রেখেছে।

এই অংশের মানুষ নিজেদের সাংস্কৃতিক পরিচয়, স’হিষ্ণুতা ও ঐক্য বজায় রেখে চলেছে। সারা পৃথিবীর মানুষ এই সভ্যতা থেকে উপাদান সংগ্রহ করে নিজের মতো গড়েপি’টে নিয়েছে।

মানবতার ইতিহাসে পূর্ব ও পশ্চিম থেকে নানা ভাবে ধর্মীয় ও দার্শনিক ঐক্য তৈরি হয়েছে, যা এই প্রদেশকে আলাদা স্থান দিয়েছে।উল্লেখ্য, ১৯৬৭ সালথেকে সিন্ধুদেশের দাবি উঠছে।

সেখানে সিন্ধিদের নিজেদের ভূমি হিসাবে এটিকে গ়ড়ার দাবি তুলেছিলেন অনেকেই। তখন নেতৃত্ব দিয়েছিলেন জিএম সৈয়দ ও পির আলি মহম্মদ। এই আ’ন্দো’লন জিএন সৈয়দের ১১৭ জন জন্মদিনে আয়োজিত হয়। সূত্রঃ আনন্দবাজার প্রত্রিকা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *