ঘরোয়া ফেসওয়াশ যেভাবে বানাবেন

সূর্য আমাদের উষ্ণ রাখে, স্বচ্ছন্দ রাখে। স্বাস্থ্যের জন্য অতি প্রয়োজনীয় উপাদান ভিটামিন ডি সরবরাহ করে। সূর্যের এত উপকারিতা সত্ত্বেও কিছু ক্ষতিকর দিক রয়েছে। ত্বকের জন্য সবচেয়ে খারাপ সান ড্যামেজ সূর্যের কারণেই হয়ে থাকে। আলট্রাভায়োলেট রশ্মি ত্বকের ক্ষতির জন্য দায়ী এবং এর ফলে চরম সানবার্ন (রোদে পোড়া) হতে পারে।

গরমের দিনে সূর্যরশ্মির কারণে ত্বকের নমনীয়তা কমে যায়, রেখা সৃষ্টি হয় এবং বয়সের ছাপসহ নানা সমস্যা দেখা দেয়। ত্বকের অকালবার্ধক্যের জন্য দায়ী সূর্যরশ্মি। তাই রোদে থেকে ত্বককে সুরক্ষা দেয়া জরুরি। এখন প্রশ্ন হলো রোদ থেকে ত্বক বাঁচাতে কী করবেন? ১. বেলা ১১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত সূর্য প্রখর থাকে। এ সময়ে সূর্যরশ্মি শক্তিশালী থাকে। এ সময়ে ত্বকের ক্ষতি হয় বেশি। অবশ্যই ত্বকের সুরক্ষায় এই সময়টা প্রখর সূর্যালোক থেকে দূরে থাকতে হবে।

২. গ্রীষ্মকালে সূর্য থেকে ত্বকের সুরক্ষার সানস্ক্রিন অন্যতম রক্ষাকবচ। যদি আপনি তারুণ্যভরা ও সুস্বাস্থ্যকর ত্বক চান, সানস্ক্রিন না দিয়ে রোদে বের হবেন না। ৩. সানস্ক্রিন দেয়ার পর দুই-তিন ঘণ্টা পর্যন্ত এটি টিকে থাকে। ত্বকের সুরক্ষায় আপনাকে দুই-তিন ঘণ্টা পরপর সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে। আর এতে ত্বক সুরক্ষিত থাকবে। ৪. রোদের মধ্যে ঘরের বাইরে বের হতে হলে ফুল হাতা পোশাক পরে বের হবেন। এই পোশাক আপনাকে সূর্যরশ্মি থেকে সুরক্ষা দেবে। এক্ষেত্রে হালকা রঙের চেয়ে কালোরঙা পোশাক অধিক কার্যকর।

৫. সূর্যরশ্মি মুখমণ্ডলের ত্বকের ক্ষতিসাধন করে বেশি। কারণ, ওই অংশ খোলা থাকে বেশির ভাগের। মাথায় টুপি পরলে মুখমণ্ডলের ওপর রোদ পড়বে না। এতে ত্বকের অকালবার্ধক্য কমবে। টুপি পরলে অধিক সুরক্ষা পাবেন। মুখের ত্বককে যদি সূর্যরশ্মির ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করতে চান, তবে হ্যাট বা ক্যাপ পরুন। তথ্যসূত্র: বোল্ডস্কাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *