৩৯ স্ত্রী, ৯৪ সন্তান,পরিবারের সদস্য বাড়াতে আরো বিয়ে করতে চান এই ব্যক্তি

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় পরিবার মিজোরামে। ৩৯ জন স্ত্রী, ৯৪ জন সন্তান, ১৪ জন পুত্রবধূ এবং ৩৩ জন নাতি-নাতনি রয়েছে। বিশ্বের বৃহত্তম পরিবারের রেকর্ড করেছেন।

পরিবারটি মিজোরামে বার্মা ও বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী অঞ্চলে একটি পাহাড়ি গ্রামে চারতলা বাড়িতে বসবাস করে। এই পরিবারের প্রধান হলেন জিওনা চানা।

তবে পরিবারের সংখ্যা বাড়াতে আরো বিয়ে করতে চান জিওনা চানা। জিওনা চানা বলেন, আমি একবার এক বছরে ১০ জন নারীকে বিয়ে করেছি। তার পুত্র ,তাদের স্ত্রী এবং শিশুরা একই বাড়িতে আলাদা আলাদা ঘরে থাকেন।

তবে একটি বিশাল রান্নাঘর সবাই ব্যবহার করেন। মিজোরামের বকতওয়য়াং গ্রামে অবস্থিত এই চারতলা বাড়িটিতে ১০০ টিরও বেশি ঘর রয়েছে। যেখানে তার স্ত্রীরা বিশাল আস্তানায় ঘুমাচ্ছেন।

এই বিশাল পরিবারের প্রতিদিন ৯০ কেজি চাল এবং প্রায় ৬০ কেজি আলু প্রয়োজন হয় রান্নার জন্য। চারতলা বাড়িটিতে ১০০ টিরও বেশি ঘর রয়েছে জিওনার তাছাড়া মুরগির মাংস যেদিন রান্না হয় সেদিন শুধু একবেলার জন্য খাবার প্রস্তুত করতে প্রায় ৩০ টি আস্ত মুরগি লাগে।

জিওনার স্ত্রীরা রোজ রান্না করেন, অন্যদিকে মেয়েরা পরিষ্কার, ধোয়া এবং পুরুষরা কাজ করে। পরুষদের কাজ হলো কৃষিকাজ, চাকরি এবং আরো অনেক কিছু করে। জিওনা চানার এক স্ত্রী, রিঙ্কমিনি যার বয়স ৩৫, তিনি বলেন আমরা জিওনাকে ঘিরে থাকি।

কারণ তিনি আমাদের বাড়ির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি। তিনি বকতাওয়ং গ্রামের সবচেয়ে সুদর্শন ব্যক্তিও। জিওনা চানার আরেক স্ত্রী হুনথারঘাঙ্কি বলেন, পুরো পরিবারের মধ্যে সুসম্পর্ক রয়েছে।

তিনি আরো যোগ করেন যে তাদের পরিবার পারস্পরিক ভালোবাসা এবং শ্রদ্ধা ভাগ করে দেয়। জিওনা নিজে বলেন, ‘আজও আমি বিয়ের জন্য প্রস্তুত। আরো একটি স্ত্রীর সমস্ত দায়িত্ব পারি’।

তিনি আরো যোগ করেছেন, ‘আমি ভাগ্যবান যে ঈশ্বর আমাকে এতজনের এক বৃহৎ পরিবার দিয়েছেন। প্রতিদিন তাদের সকাল শুরু হয় ভোর ৫:৫০টায়। আর তখন সমস্ত সদস্য একসঙ্গে প্রার্থনা করেন।

প্রার্থনা শেষে প্রতিদিনের কাজের দায়িত্বের জন্য একত্রিত হন। একটি বড় হলে প্রার্থনা ও খাবার অনুষ্ঠিত হয়। বয়স অনুযায়ী বেলা ৪ টা থেকে ৬ টা পর্যন্ত রাতের খাবার পরিবেশন করা হয়। রাত ৯ টার মধ্যে সবাই শুয়ে পড়েন।

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় পরিবারের প্রধান হয়েও জিওনা এখানে থামতে চাননি। এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, আমি বিশ্বের সবচেয়ে বড় পরিবারের কর্তা হতে পেরে গর্বিত।

আমি আরো বাড়াতে চাই এই পরিবার। আমার দেখভাল করার জন্য এখন অনেকেই রয়েছে। এটাই পরম শান্তির। জিওনার সংসারে প্রতিদিনের খাবার এদিকে পরিবারের সদস্যদের জন্য আলাদা স্কুলও বানিয়েছেন জিওনা।

সেখানে তার ছেলে-মেয়ে এবং নাতি-নাতিনিরা পড়াশোনা করেছে কিংবা করে। সেই স্কুলটি সরকারের কিছু অনুদানও পায়।জিওনাকে, ৩৯ জন স্ত্রী, ৯৪ জন সন্তান, ১৪ জন পুত্রবধূ এবং ৩৩ জন নাতি-নাতনির জন্য রিপলি-র বিলিভ ইট অর নট অনুষ্ঠানে ২০১১ সালে এবং ২০১৩-সালে তার পরিবারের এই রেকর্ডের জন্য বেছে নেয়া হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.