হা-র্ট অ্যা-টাকের এক মাস আগে থেকেই শরীরে যে ৭টি সিগনাল দেয়, সকল মানুষের জেনে থাকা জরুরী!

আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা নিজেদের স্বাস্থ্য সম্পর্কে যথেষ্ট সচেতন এবং এমনটা হওয়া খুবই স্বাভাবিক । কারণ আমরা জানি স্বাস্থ্যই সম্পদ । অর্থাৎ কোনো কারণে যদি আপনার স্বাস্থ্য প্রতিনিয়ত খা-রাপ হ-তে থা-কে বা অবনতি ঘ-টতে থাকে তাহলে সে ক্ষেত্রে কোথাও-না-কোথাও আপনার নিজের ক্ষ-তি তাই স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতন থাকা অত্যন্ত জরুরী ।

নিয়মমাফিক খাওয়া দাওয়া সাথে সাথে বাইরের যাবতীয় তৈলাক্ত জাতীয় খাবার যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ব-র্জন ক-রলেই যে স্বাস্থ্য স্বাভাবিক সুস্থ থাকবেন তা কিন্তু নয় ।

তার পাশাপাশি বেশকিছু এমন লক্ষণ দেখা যায় দে-হে আ-গে থেকে বেশকিছু রো-গের উপ-ক্রম ই-ঙ্গিত দে-য়। আজকের প্রতিবেদন সেটি নিয়ে । হা-র্ট অ্যা-টাকে প্রতিবছর বহু মানুষ মা-রা যা-ন। কিন্তু তারা জানেন না যে কখন হা-র্ট এ্যা-টাক হঠাৎ চ-লে আ-সে ।

আজ এ প্রতিবেদনের মাধ্যমে জানাবো যে এমন বেশ কিছু ধরনের লক্ষণ থাকে যা হা-র্ট অ্যা-টাকে এক মাস পূর্বে আপনার শরীরে দেখা দেই । যদি সেই সমস্ত লক্ষণ গু-লি কি আপনি উপেক্ষা করে চলে যান তাহলে হতে পারে আপনার বড়সড় বি-পদ ।

যদি এই সমস্ত লক্ষণ আপনার শরীরে দেখা দেয় তাহলে অতি অবশ্যই চি-কি-ৎসা ক-রেন। শরীর দু-র্বল ভা-ব লাগা । সাধারণত র-ক্ত-না-লিতে যদি ফ্যা-ট জ-মে যা-য় তাহলে র-ক্ত-প্র-বাহ অনেকখানি ক-মে ।

যায় যার ফলে স্বাভাবিক মাত্রায় র-ক্ত চলা-চল করতে পারে না । এবং এর ফলে আপনার শরীর অনেকটা দু-র্বল লা-গতে পা-রে । এটি অন্যতম প্রধান কারণ হা-র্ট অ্যা-টা-কের । হা-র্ট অ্যা-টা-কের একমাস আগে আপনার শরীরে ঝি-মুনি ভা-ব দে-খা দেয় ।

ম-স্তিষ্কে র-ক্ত-প্র-বাহ কমে যাওয়ার কারণে এই ঝি-মুনি হ-য়ে থা-কে । হা-র্ট অ্যা-টাক মূলত দেহে র-ক্ত প্র-বাহ স্বাভাবিক না থাকলে ঘটার সম্ভাবনা থাকে । তাই আপনার শ-রীরে অতিরিক্ত পরিমাণে ঘা-ম দে-খা দেবে হা-র্ট অ্যা-টা-কের পূর্বে ।

বুক, বাহু, পিঠ এবং কাঁ-ধে ব্যা-থা অনু-ভূত হলে দ্রুত ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করুন। বুকে ব্যথা এবং সং-কোচন হৃৎ-পিণ্ডের অ-সু-স্থতার একটি বড় লক্ষণ। ফুসফুসে পর্যাপ্ত পরিমাণে অক্সিজেন এবং র-ক্ত স-রবরাহ না হলে এই ধরনের সম-স্যা দে-খা দেয়।

হা-র্টের সম-স্যা থাকলে ফুসফুসে র-ক্ত চ-লাচল কমে যায়। আর শ্বাস-কষ্ট বা শ্বা-স ছোট হয়ে আসার মতো স-মস্যা দেখা যায়। উপরিক্ত লক্ষণ-গু-লি দেখা দিলে আপনি অতি অবশ্যই চিকিৎসা করান। ফেলে রাখবেন না নিজেকে এবং এগুলোকে একদমই উপেক্ষা করবেন না ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *