Breaking News
Home / বিনোদন / “কানের নিচে মা-র’বো এক থা-প্প’ড়”, মঞ্চে গান গাইতে উঠেই এক ব্যক্তির ওপর মে-জা’জ হা-রালেন নচিকেতা, তু-মু’ল ভাইরাল ভিডিও!

“কানের নিচে মা-র’বো এক থা-প্প’ড়”, মঞ্চে গান গাইতে উঠেই এক ব্যক্তির ওপর মে-জা’জ হা-রালেন নচিকেতা, তু-মু’ল ভাইরাল ভিডিও!

Advertisement

শুধুমাত্র অভিনয় জগতের সাথে যুক্ত থাকা মানুষগুলো যে আমাদেরকে মনোরঞ্জন করে চলে সবসময় তেমনটা কিন্তু নয় । তার পাশাপাশি গান অর্থাৎ সঙ্গীত জগতের সাথে মানুষগুলো কিন্তু আমাদের জীবনে ওতপ্রোতভাবে জড়িত আছে ।

Advertisement

প্রতিদিনকার কর্মব্যস্ততার পর ও গান শুনে আমরা নিজেদের ক্লা-ন্তি দূ-র করে থাকি । এই ঘটনা প্রমাণ আমরা বহুবার পেয়েছি এবং আগামী দিনে যে পাব সেটি বলার অবকাশ রাখে না ।

কারণ অনেকে এটা মনে করে যে মানসিক অবসাদের একমাত্র অলিখিত ওষুধ হলো গান। গানের জগতের কথা বলতে গেলেই এমন একজন মানুষের কথা বলতে হবে যাকে ছাড়া এটি অ-স-ম্পূর্ণ । অর্থাৎ নচিকেতা চক্রবর্তী ।

তিনি সাধারণত বিখ্যাত তার জীবনমুখী গানের জন্য । ডাক্তার থেকে শুরু করে নেতা মন্ত্রী কাউকে তিনি বাদ দেননি তাঁর গানের বর্ণনা করতেন। এমনকি রাজনৈতিকভাবেও অনেক গান তিনি স-মা-লোচনার সুরে গিয়েছেন মঞ্চে।

এর জন্য বিভিন্ন বার তাকে বি-ত-র্কের মু-খে পড়তে হলেও থেমে থাকেন নি তিনি বরং বেড়েছে আরও জে-দ । এবার সেই নচিকেতা মঞ্চে উঠে মে-জাজ হা-রালেন । কোন একটি অনুষ্ঠানে নচিকেতা গান গাইছিলেন এবং গান এরই মাঝে কোন এক শ্রোতা-দর্শক তাকে উদ্দেশ্য করে কোন ক-টুক্তি ক-থা ব-লে ।

যেটি নচিকেতার কান অবধি পৌঁছেই । তিনি সঙ্গে সঙ্গে গান থামিয়ে তাকে ধ-মক দে-য় । তার সাথে সাথে তিনি এটাও বলেন যে ‘মা-রবো কানের নিচে এক থা-প্পর’ । যদিও পরবর্তী ক্ষেত্রে তিনি নিজেকে সামলে নেন এবং পরবর্তী অনুষ্ঠান শুরু করেন।

নচিকেতার এই ধরনের ব্যবহারে অনেকেই ক্ষুব্দ আবার অনেকে মনে করেন তিনি যা করেছেন ঠিকই করেছেন । কারণ কোন শ্রোতা-দর্শক বন্ধুর কোন অধিকার নেই মঞ্চে থাকা শিল্পীকে বা যে কোন শিল্পীকে ক-টুক্তি ম-ন্তব্য করার । তাই তিনি যা করেছেন ঠিকই করেছেন বলে মনে করছেন অনেকে । ইতিমধ্যে ভিডিওটি নেটদুনিয়া কা-পাচ্ছে ।

Advertisement

Check Also

আমার কোনও ইগো নেই, আমার কাছে সব মানুষ সমান: সানি

Advertisement কিছু বছর অভিনয়ের পর বহু অভিনেতা-অভিনেত্রীই পা বাড়ান প্রযোজনার দিকে। সেই পথেই এবার এগোতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *