সমুদ্রে স্নান করতে গিয়ে খাঁ-দের ধারে প-ড়ে গে-লেন পাঁচ যুবতী, করলেন ড্রোন দিয়ে ভিডিও, তু-মু’ল ভাইরাল ভিডিও!

চারিদিকে কো-লাহল এবং ব্যস্ততম জীবনকে পাশে রেখে আমাদের মন যায় কখনো কখনো একা নিরিবিলিতে কোথাও ঘুরে আসতে । তাই হয়তো আমরা পাড়ি দী কখনো সমুদ্র কখনো পাহাড় কখনোবা জ-ঙ্গলে ।

তার কারণ একটাই প্রতিদিনের ব্যস্ততম রুটিন কে ভুলে একটু বেহিসাবি জীবনযাত্রা পালন করার জন্য । এবং এই সমস্ত কিছু আমাদের জীবনে অত্যন্ত দরকার হয় মাঝেমধ্যে । যার ফলে আমরা কাটিয়ে উঠতে পারি মা-নসিক অ-বসাদ।

ছোট বাচ্চাদেরকে শুরু করে বড়দের কেউ যদি জিজ্ঞেস করেন যে আপনার ইচ্ছে কি তাহলে হয়তো অনেকেই এই উত্তরটি দেবে যে তাদের ঘুরতে ভালো লাগে ।

জঙ্গলে কথা বললেই মাথায় যে কথাটি সর্বপ্রথম আসে সেটি হলো বা-ঘ ভা-ল্লুক হিং-স্র জ-ন্তু এবং তার সাথে সাথে বড় বড় গাছ । যেখানে পৌঁছায় না সূর্যের আলো । কিন্তু যারা ট্রাভেলিং করতে পারে না বা জ-ঙ্গলে যায়নি তাদের ক্ষেত্রে কি হবে।

বাইরে জায়গায় ঘুরতে গিয়ে সব সময় যে আনন্দ উপভোগ হয়েছে বা রো-মাঞ্চকর অভিজ্ঞতা সঞ্চয় হয়েছে তেমন কিন্তু কোনো বা-ধ্য-বাধকতা নেই । কারণ পূর্বের বেশকিছু ঘটনা রয়েছে যেগুলো বারবার মনে করাচ্ছে

যে বাইরে এমন কিছু পর্যটন কেন্দ্র রয়েছে যেখানে পর্যটকরা মৃ-ত্যু-বরণ ক-রেছে । ফিরে আসেনি আর ঘরে । সম্প্রতি ইউটিউবে এরম একটি ভিডিও প্রকাশিত পেয়েছে ।

সেখানে একাধিক বি-পদ-জ-নক পর্যটন কেন্দ্র এবং সেগুলির সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য বিবরণ ও ঘটনা তুলে ধরা হয়েছে । কিন্তু তাদের মধ্যে দুটি ভিডিও সবথেকে জনপ্রিয় লাভ করেছে । একটি হলো থাইল্যান্ডের ‘অ্যানিম্যাল পার্ক’ ।

সেখানে মাঝ জলে নৌকো করে যাত্রীরা অর্থাৎ পর্যটকেরা পাড়ি দেয় এবং সেই জলে থাকে প্রচুর হিং-স্র কু-মির । তাদেরকে নিজের হাতে খাবার খাওয়ানোর অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করে থাকে অনেকে । কিন্তু বেশ কয়েক বছর আগে এক পর্যটক কুমিরকে খাওয়াতে গিয়ে কু-মিরের দ্বা-রা আ-ক্র-মণ হ-য় ।

যদিও পরবর্তী ক্ষেত্রে সেই থাইল্যান্ডের পার্কটি বন্ধ করে দেয় থাইল্যান্ড সরকার । দ্বিতীয় যে ঘটনাটি জনপ্রিয়তা লাভ করেছে সেটি হল ব্রাজিলের একটি বিচ্ছিন্ন দ্বীপ । যেখানে মানুষের আনাগোনা নেই ।

কিন্তু রয়েছে একটি লাইটহাউস । লাইটহাউস কে সচল রাখার জন্য একটি পরিবার উপর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল । কিন্তু সেখানে এত বি-ষাক্ত সা-পের ব-সবাস যে তার গোটা পরিবার সা-পের কা-মড়ে মা-রা যা-য় । তারপর থেকে সেই দ্বীপে আইল্যান্ডে কাউকে প্রবেশ করতে দেওয়া হয় না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *