স্বস্তি পেলো মধ্যবিত্তরা, একদরে আলু বিক্রি করবে রাজ্য

রাজ্য সরকারের উদ্যোগে অবশেষে এবার স্বস্তির নিঃশ্বা’স ফেলবেন সাধারণ মানুষ। ৪০ টাকা কেজি দরে আলু কিনতে গিয়ে এতদিন সাধারণের পকেট গড়ের মাঠ জোগাড় হয়েছে। এবার থেকে রাজ্যের প্রতিটি সরকারীভাবে নথিভূক্ত বাজারে ২৫ টাকা কেজি দরে আলু মিলবে।

রাজ্যের কৃষি বিপনন দ’প্ত রের তরফ থেকে আগামীকাল সকল খুচরো বিক্রেতাকে ২২ টাকা কেজি দরে জ্যোতি আলু দেওয়া হবে। কৃষি বিপনন দ’প্ত র থেকে ২২ টাকা কেজি দরে যে আলু পাওয়া যাব’ে খুচরা বিক্রেতারা সেই আলু খোলাবাজারে বড়জোর ২৫ টাকা দরে বিক্রি করতে পারবেন।

রাজ্য সরকারের নির্দেশে কৃষি বিপনন দ’প্ত রের সচিব রাজেশ সিংহ গতকাল এর জন্য একটি বিশেষ টাস্কফোর্স গঠন করেছেন। সেইমতো গতকালই কৃষি বিপনন দ’প্ত রের গঠিত টাস্কফোর্স রাজ্যের প্রতিটি বাজার কমিটির স’ঙ্গে বৈঠক করে।

বৈঠকে গৃহীত সি’দ্ধান্ত অনুযায়ী, কৃষি বিপনন দফতর ও টাস্কফোর্স সম্মিলিত ভাবে বাজার কমিটি গু’লিতে ২২ টাকা কেজি দরে আলু পৌঁছে দেবে। তবে বিক্রেতারা যদি ২৫ টাকা কেজি দরে আলু বিক্রি করতে চান,

তাহলে তাকে শুধু এই দরেই আলু বিক্রি করতে হবে। অন্য আড়তদারের থেকে আলু কিনে বেশি দামে বিক্রি করা যাব’ে না। একই দোকানে দুই রকম দরে আলু বিক্রি করা যাব’ে না।

কৃষি বিপনন দ’প্ত রের কড়া নির্দেশ, কোন সবজি বিক্রেতা যদি এই নিয়ম উল’ঙ্ঘন করেন তাহলে তাহলে তাকে কড়া শাস্তি পেতে হবে। উল্লেখ্য, লকডাউন পর্ব থেকেই রাজ্য আলু এবং পেঁয়াজসহ অন্যান্য সব সবজির দাম তুলনামূলকভাবে বৃ’দ্ধি পায়।

নাসিক থেকে আগত পেঁয়াজের আম’দানি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পেঁয়াজের দাম বৃ’দ্ধি হয়। পাশাপাশি আলুর দামও আকাশছোঁয়া হয়ে যায়। সরকারিভাবে নথিভুক্ত বাজারগু’লিতে যাতে কম মূল্যে আলু পাওয়া যায় সেই উদ্দেশ্যেই এই বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করল রাজ্য সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *