মাত্র ১৪ বছরেই বিশ্ববিদ্যালয় পাস! দেশের কনিষ্ঠতম স্নাতক, দু-হাতেই লেখে অগস্ত্য

মাত্র ৯ বছর বয়সে মাধ্যমিক, ১১ বছরে উচ্চমাধ্যমিক, আর ১৪ বছর বয়সে স্নাতক। এমনই কৃতিত্ব গড়ে সবাইকে তাকে লাগিয়ে দিলেন হায়দরাবাদের অগস্ত্য জয়সওয়াল। তাঁর দাবি, ভারত প্রথম ছাত্র হিসাবে এত কম বয়সে স্নাতক হল সে।

ছোট থেকেই অত্যান্ত মেধাবী অগস্ত্য, মাস কমিউনিকেশন এবং জার্নালিজমে হায়দরাবাদের ওসমানিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি পেয়ছে। দশম স্তরের পরীক্ষায় তার জিপিএ ছিল ৭.৫। আর দ্বাদশ স্তরের পরীক্ষায় সে ৬৩ শতাংশ নম্বর পেয়েছিল।

অগস্ত্যর সাফল্যে দারুন খুশি তার বাবা-মা। বাবা অশ্বিনী কুমা’র জয়সওয়াল বলেন, ‘‘প্রত্যেক শিশুর মধ্যেই এক বিশেষ ক্ষমতা থাকে। তাই বাবা-মায়েরা ছোটবেলা থেকে যত্ন নিলে শিশুরা ইতিহাস গড়তে পারে।’’ মা ভাগ্যলক্ষ্মী জানিয়েছেন, ‘‘আমর’া সবসময় ওকে যে কোনও বি’ষয় ঠিকঠাক বোঝার কথা বলতাম।

ও সব সময় প্রশ্ন করত। আমর’া সেই প্রশ্নের জবাব দেওয়ার চেষ্টা করতাম।’’ জাতীয় স্তরের টেবিল টেনিস খেলোয়াড়, বড় হয়ে ডাক্তারি পড়তে চাওয়া অগস্ত্য জানিয়েছে, ‘‘আমা’র বাবা, মা-ই হলেন আমা’র শিক্ষক।

তাঁদের সাহায্যেই আমি সমস্ত বাধা অতিক্রম করেছি। আমি ১.৭২ সেকেন্ডে ‘এ’ থেকে ‘জেড’ লিখতে পারি। ১০০ পর্যন্ত নামতা আমা’র মুখস্থ। ২ হাতে লেখার পাশাপাশি আমি মোটিভেশনাল বক্তা।’’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *