মানুষের মত রং ঢং করে সবাইকে মাতিয়ে রাখেন বানর ছানা, খেলছে বাচ্চার সাথে, ব্যাপক ভাইরাল ভিডিও!

সোশ্যাল মিডিয়া আলোচনার বড় মাধ্যম । বর্তমানে সকল ধরনের নিউজ তথা চলমান কোন পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে এ সোশল মেডিয়া অন্যতম মাধ্যম। সকলেই চায় সোশ্যাল মিডিয়াতে একটু ভাইরাল হতে।

যাতে করে সকলের মধ্যে একটু আলোচনায় আসা যায়। তেমনি সোশ্যাল মিডিয়াতে সকলেই নিজের একটি পরিচয় বানাতে চায় । যার মাধ্যমে সহজে সে নিজেকে অন্যের কাছে তুলে ধরতে পারে।

এদিক গুলোকে আরও সহজ করেছে সোশ্যাল মিডিয়া । সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে খুব সহজে ও খুবই অল্প সময়ের মধ্যে বিশ্ব দরবারে নিজের কাজ ও নিজে কে সহজে তুলে ধরা যায়।

প্রত্যেকে চেষ্টা করে যত সহজ উপায় হোক কিংবা নতুন কিছু দিয়ে ভাইরাল হওয়া । আর এই প্রতিভা বিকাশের অন্যতম মাধ্যম তো সোশ্যাল মিডিয়া আছেই। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে খুব সহজেই নিজের প্রতিভাকে দেখানো যায় এবং অন্য সকলের কাছে নিজের প্রতিভাকে তুলে ধরা যায় ।

এই প্রতিভার আলোচনা ও অনেক সময় সমালোচনা হয়ে থাকে । কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এই প্রতিভা প্রশংসা বয়ে আনে। শুধুমাত্র মানুষ দিয়ে মানুষ দিয়ে নয়, অনেক সময় আমাদের গৃহপালিত জন্তু দাঁড়াও অনেক ভিডিও তৈরি হয় এবং তা জনমনে একটি ছাপ ফেলে দেয়।

মুহূর্তের মধ্যেই তা ভাইরাল হয়ে যায় এবং অনেক প্রশংসা আলোচনার জন্ম দেয়। এমনি একটি ঘটনা যা বেশ কিছুদিন আগে ভাইরাল হয় এবং প্রচুর আলোচিত হয়।

একটি ভিডিওতে দেখা যায় একটি পরিবারে মা বাড়িতে রান্না করছিলেন এবং তার বাচ্চা একটি ছোট বাচ্চাদের গাড়ির উপর বসে ছিল। যেহেতু মা কাজে ব্যস্ত ছিলেন । তাই সে বাচ্চাটিকে কে নিয়ে ঘুরার মত পরিস্থিতি ছিল না ।

ঠিক সে সময় তার বাড়ির পালিত বানরটি মেয়েটির সাথে খেলা করে এবং ছোট গাড়িটিকে ঠেলতে থাকে । একসময় দেখা যায় মেয়েটি ও বানরের অগাধ ভালোবাসার সম্পর্ক। আসলে যখন কোন কিছু আমাদের কাছে থাকে এবং অনেক দিন ধরে আমাদের সঙ্গে থাকে তার প্রতি আমাদের একটা মায়া কাজ করে ।

ঠিক যেমনটি এখানে হয়েছে। খুব খুব অল্প সময়ের মধ্যে ভিডিওটি ভাইরাল হয় এবং তার প্রচুর প্রশংসা পায়। এমনকি অনেকে আবেগঘন অবস্থায় ভিডিওটি প্রশংসা করেন।

আমরা জানি একটি বানর যারা জঙ্গলে বাস করে । তার চিন্তাভাবনা কখনোই এতটা হতে পারে না । কিন্তু এই যে পরিবারের সাথে একটি সম্পর্ক এটাই বুঝিয়ে দেয় । কত সুন্দর ভাবে পরিবারের সাথে মিশে আছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.