মা’কে ডেকে ছেলে বলছে, মা আমার একটা অনুরোধ রাখবে?

Sabbir Rahman 0

সন্তানেরা যেমন মায়ের কাছে সবথেকে প্রিয় সম্পদ তেমনি মায়েরাও সন্তানের কাছে সবথেকে ভরসার আশ্রয়। মায়ের কাছেই বেশিরভাগ সন্তান দিনের বেশি সময় মানুষ হয়। তাই মায়েদের সঙ্গে সন্তানের নাড়ির টান যা সহজে মিলিয়ে যায় না।

কিন্তু এমন একটি ঘটনা যা পড়ে আপনি একটু হকচকিয়ে যেতে পারেন কিন্তু শেষ অবধি পড়লে তবেই এর সন্তান ও মা’য়ের সম্পর্ক বুঝতে পারবেন। ছেলে তার মা’কে প্রশ্ন করলেন তিনি তার মা’কে একটি অনুরোধ করতে চান।

তার উত্তরে মা সম্মতি জানালে ছেলে বলেন তার মায়ের শরীর ভালো নয়, বয়সও বেড়ে গিয়েছে। তার সঙ্গে ডায়বেটিস, হার্টের সমস্যা, হারের সমস্যা রয়েছে। ছেলের ছোট ঘুপচি বাড়িতে মায়ের হয়তো অস্বস্তি হয় এমন কথাই জানায় ছেলে তার মা’কে।

এরপর সে প্রস্তাব রাখে মা’কে দেখাশোনা করার কেউ নেই, ছেলে ও তার স্ত্রী কাজে বেরিয়ে যায়। তাই যাতে মা একা না থাকেন ও মায়ের দেখভাল করার লোক থাকে তার জন্য বৃদ্ধাশ্রমের স্পেশাল ব্রাঞ্চে ভর্তি করালে কেমন হয়!

ছেলের এমন প্রস্তাব শুনে মা বলেন, ছেলে যা চায় তাই হবে। এর পরের দিন মায়ের সমস্ত দরকারী জিনিস গাড়িতে তুলে ছেলে ও মা রওনা দেয় বৃদ্ধাশ্রমের দিকে। এদিকে গাড়ি আটকে পড়েছে জ্যামে। মা ছেলে কারোর মুখেই কোনো কথা নেই।

এমন সময় নিরবতা ভঙ্গ করলেন মা। ছেলের উদ্দেশ্যে তিনি বললেন, “আমাকে দেখতে যাবি তো ওখানে? পারলে একটা ফোন কিনে দিস”। ছেলে প্রত্যুত্তরে হেসে জানায়, বৃদ্ধাশ্রমে ফোন আছে। এরপরেই গাড়ি এসে থামে একটি পাঁচ তলা বাড়ির সামনে।

ছেলে মা’কে জানায়, মায়ের সবথেকে পছন্দের দক্ষিণের ঘরটা সে বুকিং করেছে। এরপর ঘরে গিয়ে প্রবেশ করতেই। মা চমকে ওঠেন। সকলেই তাকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। তার নাতি নাতনি বৌমা সকলেই একটা বড় কেক নিয়ে হাজির।

দুই মেয়ে ও তাদের স্বামীও রয়েছে। এমন দৃশ্য দেখে মায়ের চোখে খুশীর জল বাঁধ মানে না। ছেলে জানায়, এই বাড়িটি কোনো বৃদ্ধাশ্রম নয়, এটি তাদেরই বাড়ি এবং বাড়ির নাম তার বাবার নামে দেওয়া।

রাত্রি বেলায় সকলে যখন ঘুমোতে যাবে তখন মা ছেলেকে ডেকে বলেন, “এই কৌটোটা রাখ, এর মধ্যে ইঁদুরের বিষ আছে। আর দরকার হবে না। ভেবেছিলাম যদি বৃদ্ধাশ্রমে দিয়ে আসিস তবে সেদিনই খেয়ে নেব”।

ছেলে মা’কে জানায়, সে আগেরদিন রাত্রেই ওই কৌটোতে বিষ সরিয়ে ওষুধ রেখে দিয়েছে। এমন বার্তালাপের পর যখন ছেলে চলে যায় তখন মা মনে মনে ভাবেন তিনি ছেলেকে সত্যিই মানুষ করতে পেরেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.