রাস্তার মধ্যেই মাটি স্পর্শ না করে অসাধারণ জিমন্যাস্ট করে তাক লাগাল যুবতী, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

বর্তমান যুগের মেয়েরা ছেলেদের থেকে কোন দিক থেকে পিছিয়ে নেই। লেখাপড়া চাকরি ঘর-সংসার সামলানো সবকিছুতেই মেয়েরা অনন্যা। বলা হয় মেয়েদের “দশোভূজা”, একদিকে সে যেমন নিজের ঘর সংসার সামলায়, তেমনি অন্যদিকে তার চাকরি এবং বাইরের পরিবেশটাও সামলানোর ক্ষমতা রাখে।

সকালে উঠে যখন বাড়ির সকলের জন্য সে সব কাজ করে সবাইকে রেডি করে তেমনি সকল এসে সে নিজেও রেডি হয়ে অফিসে যায়, আবার সারাদিনই সন্ধ্যের পর সবার বাড়ি ফেরার পর নিজে বাড়ি ফিরে প্রত্যেকের জন্য কাজ করে প্রত্যেকের জন্য খাবার রান্না করে তবেই সে নিজের কাজ করার সময় পায়।

তার পরেই তার কপালে ঘুম জোটে। মেয়েরা সত্যিই অনন্যা। অ্যাথলেটিক্সের দিক থেকে একটি পুরনো ধারণা ছিল মেয়েরা ছেলেদের থেকে ক্রীড়াক্ষেত্রে দুর্বল। কিন্তু বর্তমানে সেই ধারণা বদলে যাচ্ছে।

শুধু মেয়েরা নয় এমনকি গৃহবধূরাও এই দিক থেকে রয়েছেন এগিয়ে। এই ব্যাপারে উঠে আসে ন্যাশনাল অ্যাথলিট পায়েল রোহাতগির কথা। তিনি নিজের জীবনে বিবাহিত হলেও একের পর এক রেকর্ড ভেঙে তৈরি করেছেন ইতিহাস।

এমনকি তার কিছু ভিডিওতে এও দেখা গেছে, তিনি শাড়ি পড়েই একের পর এক ব্যাক ফ্লিপ দিচ্ছেন। কিছু সময় আগে তার একটি ভিডিওতে দেখা গেছিল, তিনি একটি পার্কের মধ্যে শাড়ি পড়ে ব্যাক ফ্লিপ দিচ্ছেন,

ভিডিওটি দেখে মুগ্ধ হয়ে গেছিলেন জনতা। সম্প্রতি ভাইরাল হয়েছিল একটি স্কুল ছাত্রীর কাহিনী। 16 বছরের পায়েল দূর থেকে দৌড়ে এসে তার কোচ এর হাতের উপর ভর দিয়ে আকাশেই ফ্লিপ মেরে আবার মাটিতে নেমে এসেছিল একেবারে।

জিনিসটি দেখতে যতটা সহজ করা ততটাই কঠিন। অসম্ভব প্র্যাকটিস এবং ফিটনেস থাকলে তবে এই অসাধ্য সাধন করা সম্ভব।ভিডিওটি দেখে মুগ্ধ হয়ে গেছিলেন জনতা। মেয়েটির প্রশংসা করেছিলেন সবাই। আবার ভাইরাল হল পায়েলের আরেকটি ভিডিও।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, পায়েল টপ এবং কমলা রঙের একটি প্যান্ট পড়ে কোন একটি স্থানে ফ্লিপ দিচ্ছে। কাঁধে ব্যাগ থাকা অবস্থাতেই সে ফ্লিপ দিচ্ছে। তার ফিটনেস দেখে মুগ্ধ হয়ে গেছেন দর্শক।

সম্ভবত কোন স্থানে বেড়াতে গিয়ে সে এই ভাবেই তার শরীর চর্চার একটি ভিডিও পোস্ট করেছে। তার এই ফিজিক্যাল এক্সারসাইজ মুগ্ধ করে দিয়েছে সবাইকে। ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় হয়ে গেছে ভাইরাল।

ভিডিওটি পোস্ট করা হয়েছে “সেলিব্রিটি গ্যালারি” নামক একটি অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেল থেকে। প্রায় 25 হাজার মানুষ ভিডিওটি কে লাইক করেছে। মেয়েটির ফিটনেস দেখে মুগ্ধ হয়ে গেছেন দর্শক।

কমেন্ট বক্সে সবাই তার প্রশংসা করেছেন। এই সব মেয়েরাই সকলের কাছে অনুপ্রেরণা। এখনো অনেক জায়গায় মেয়েদের এগিয়ে যাওয়াকে খারাপ মনে করা হয়, তাদের পা এগুলোর আগেই আটকে দেওয়া হয়। প্রতিটি মেয়ের উচিত এদের দেখে শিক্ষা লাভ করা তাতে নিজেদের জীবনে তারাও এভাবেই এগিয়ে যেতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.