Breaking News
Home / আন্তর্জাতিক / বরফ গলে বেরিয়ে এল হাজার হাজার বছরের পুরোনো ইতিহাস, চাঞ্চল্যকর

বরফ গলে বেরিয়ে এল হাজার হাজার বছরের পুরোনো ইতিহাস, চাঞ্চল্যকর

Advertisement

সেখানে মধ্যরাতের আকাশে জ্বলজ্বল করতে দেখা যায় সূর্যকে। নিশীথ সূর্যের দেশ সেই নরওয়েতেই এবার সন্ধান মিলল হাজার হাজার বছরের পুরোনো ইতিহাসের। না, মাটি খুঁড়ে নয়, ইতিহাস উঠে এল বরফ গলে।

বেশ কয়েক বছর ধরেই আবহাওয়ার পরিবর্তনের জন্য অন্যান্য মেরু সংল’গ্ন অঞ্চলের মতো বরফ গলতে শুরু করেছে নরওয়েতেও। মানুষের লাগামছাড়া অত্যাচারে প্রতিশোধ নিতে শুরু করেছে প্রকৃতি।

কিন্তু প্রকৃতির সেই প্রতিশোধ এবার যেন আশীর্বাদ হয়ে দেখা দিল সুদূর নরওয়েতে। বরফ গলে গিয়ে বেরিয়ে এল কয়েক হাজার বছরের পুরোনো অ’স্ত্রশস্ত্র।

জানা গেছে, নরওয়েতে সম্প্রতি উ’দ্ধার হওয়া ওই অ’স্ত্র গু’লি প্রায় ৬ হাজার বছর আগেকার ইতিহাসের সাক্ষী। সেগু’লির মধ্যে আছে তির এবং অন্যান্য প্রাচীন অ’স্ত্র। নরওয়ের সবচেয়ে উঁচু পর্বতমালা থেকেই পাওয়া গেছে প্রায় ডজন খানেক ঐতিহাসিক তির।

জানা গেছে, নরওয়ের পাহাড়ের প্রায় ৬০ একর এলাকায় বরফ গলে গেছে প্রাকৃতিক পরিবর্তনের কারণে। আর তার ফলেই ইতিহাসের এই মূল্যবান নিদর্শনগু’লো বেরিয়ে এসেছে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা।

সূত্রের খবরে জানা গেছে, কেমব্রিজ, অসলো এবং বার্জেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বি’ষয়ক গবেষকরা এই অঞ্চলে প্রায় ৬৮ টি তির খুঁজে পান। দক্ষিণ নরওয়ের পাহাড়ের ১৮ একর অঞ্চল থেকে এই তির উ’দ্ধার করা হয়। গবেষকদের মতে, উ’দ্ধার করা তির গু’লো প্রস্তর যুগ থেকে মধ্য যুগের মধ্যে তৈরি হয়েছে।

এখনো পর্যন্ত হওয়া গবেষণা থেকে জানা গেছে, খ্রিস্টপূর্ব ৪১০০ সালে ওই তির ও অ’স্ত্র নির্মাণ করা হয়েছিল। এছাড়া রে’ডিওকার্বন অ্যানালিসিসের মাধ্যমে জানা গেছে কিছু তির ১৩০০ খ্রিস্টাব্দের তৈরি। যদিও সঠিক তারিখ নিশ্চিত করা যায় নি।

বিশেষজ্ঞদের দাবি, নরওয়ের তির ও অ’স্ত্র বিভিন্ন পশুর হাড় এবং লোহা দিয়ে তৈরি। এ কারণেই এত বছর পরেও অক্ষত অবস্থায় পাওয়া গেছে সেগু’লিকে। বরফে চাপা পড়ে থাকা সত্ত্বেও ক্ষ’তি হয় নি কোনো। অ’স্ত্র গু’লিতে কাঠের তৈরি হাতল রয়েছে বলেও জানিয়েছেন গবেষকরা।

Advertisement

Check Also

ভয়াবহ দুর্ঘটনা, স্টেশনের পাঁচিল ভেঙে বেরিয়ে এল মেট্রো, যেভাবে প্রাণ বাঁচাল তিমির লেজ

Advertisement ভ’য়ানক মেট্রো দু’র্ঘটনা নেদারল্যান্ডে, কপাল জোরে রক্ষা পেলেন চালক। শেষ স্টেশনে না থেমে ট্রেনটি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *